kalerkantho

বুধবার । ৯ আষাঢ় ১৪২৮। ২৩ জুন ২০২১। ১১ জিলকদ ১৪৪২

মোটরসাইকেলে বেপরোয়া গতি, বিরামপুরে ঈদের দিনেই আহত ৩২

বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি   

১৫ মে, ২০২১ ১৩:০২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মোটরসাইকেলে বেপরোয়া গতি, বিরামপুরে ঈদের দিনেই আহত ৩২

দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলায় বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালনায় ঈদের প্রথম দিনেই সড়ক দুঘটনায় ৩২ জন যুবক আহত হয়েছেন। এঘটনায় নুর ইসলাম (২১) নামে এক যুবক আশঙ্কাজনক অবস্থায় রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

গতকাল শুক্রবার দুপুর ২টা থেকে সন্ধ্যা অবধি বিরামপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে এসব দুর্ঘটনা ঘটে। তবে শহরের মহাসড়কেই দুর্ঘটনা বেশি ঘটেছে। আহতদের সবার বয়স ১৬ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে। বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক শাহারিয়ার কবির হিমেল কালের কণ্ঠকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানতে চাইলে বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. আব্দুল্লাহ আল-মাহমুদ শোভন কালের কণ্ঠকে বলেন, ঈদের প্রথম দিনেই মোটরসাইকেলে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩২ জন যুবক আহত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। তাদের মধ্যে এক যুবকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার মাথায় রক্তক্ষরণ হচ্ছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুরে পাঠানো হয়েছে।

দিনাজপুর সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের সভাপতি আকরাম হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, বিরামপুর একটি জনবহুল এলাকা। চার উপজেলার কেন্দ্র হিসেবে বিরামপুরকে বলা হয়। প্রতিবছর ঈদের সময় শহরে জনসমাগম বাড়তে থাকে। 

তিনি বলেন, বেপরোয়া মোটরসাইলে চালানোর জন্য শহরের প্রতিটি প্রবেশমুখের রাস্তায় পুলিশের চেকপোস্ট বসালে এসব অনেক কমে আসবে। তারপরও অভিভাকদের সচেতন হতে হবে।

বিরামপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মতিয়ার রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, থানা পুলিশের পক্ষ থেকে শহরের বিভিন্ন জায়গায় টহলদল রয়েছে। উঠতি বয়সের যুবকরা যেন বেপরোয়াভাবে মোটরসাইল চালাতে না পারে সেদিকে বিশেষভাবে নজর রাখা হচ্ছে।

জানতে চাইলে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) এর দিনাজপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ কালের কণ্ঠকে বলেন, আসলে বিষয়টি দুঃখজনক। আমি এটার জন্য অভিভাবকদের দায়ী করব। সন্তানদের হাতে বাইক তুলে দেওয়ার আগে তার নিরাপত্তার কথা ভাবা দরকার। নিজ নিজ পরিবার থেকে সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পরিমল কুমার সরকার বলেন, ঈদের দিন থেকেই আমরা শহরের বিভিন্ন জায়গায় বেপরোয়াগতিতে চলা মোটরসাইকেলের বিষয়ে অভিযান চালিয়েছি। এই অভিযান অব্যাহত থাকবে। আসলে এবিষয়ে সবার আগে অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে।



সাতদিনের সেরা