kalerkantho

শুক্রবার । ৪ আষাঢ় ১৪২৮। ১৮ জুন ২০২১। ৬ জিলকদ ১৪৪২

'আমি আপনাদের জেলার ডিসি...খাবারটি সাহরিতে খেয়ে নেবেন'

অনলাইন ডেস্ক   

১২ মে, ২০২১ ১৫:২১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'আমি আপনাদের জেলার ডিসি...খাবারটি সাহরিতে খেয়ে নেবেন'

রাস্তা, স্টেশন কিংবা ফুটপাত। গভীর রাতেও এসব স্থানে আশ্রয় নিয়ে থাকে ভাসমান ও ছিন্নমূল অনেক মানুষ। হঠাৎ ঘুম থেকে জাগিয়ে তাদের একেকজনের হাতে একটি করে প্যাকেট  তুলে দিচ্ছেন এক ব্যক্তি। মুখে বলছেন, 'আসসালামু আলাইকুম। আমি আপনাদের জেলার ডিসি। খাবারটি সাহরিতে খেয়ে নেবেন। এতটুকুই করতে পারলাম। বিনিময়ে শুধু দোয়া করবেন।' 
 
জেলাটি নারায়ণগঞ্জ। রমজানের প্রথম দিন থেকেই এই ভাসমান অসহায়, দুস্থ মানুষের মাঝে প্রতিরাতে সাহরি বিতরণ করে যাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ। ইতিমধ্যে প্রায় ছয় হাজার অসহায় ছিন্নমূল মানুষের মাঝে রাতে এই সাহরি বিতরণ করা হয়েছে জেলার বিভিন্ন স্পটে। জেলা প্রশাসনের সঙ্গে উপজেলা প্রশাসন ছাড়াও এই অনন্যসাধারণ মানবিক উদ্যোগে যোগ দিয়েছে কয়েকটি সংগঠন। 
এই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার ভোরেও নারায়ণগঞ্জের লঞ্চ টার্মিনাল, রেলস্টেশন, চাষাড়া মোড়ে ২০০ জনের মাঝে সাহরি নিয়ে হাজির হন জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন নেজারত ডেপুটি কালেক্টর সাইদুজ্জামান হিমু, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল মতিন খান ও রোটারি ক্লাব নারায়ণগঞ্জের সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান।
 
এভাবেই তিনি প্রতি রাতে কোথাও না কোথাও হাজির হয়েছেন সাহরির প্যাকেট নিয়ে। শহরের চাষাড়া রেলস্টেশন, শহীদ মিনার, খাজা মার্কেটসহ বিভিন্ন এলাকার আশ্রয়হীন ভাসমান মানুষ অন্তত এক বেলার জন্য হলেও এই সহায়তা পেয়ে ভালোভাবে সাহরি করার সুযোগ পেয়েছেন। ফেসবুকেও অনেকে জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহর রাতভর খাবার বিতরণের ছবি শেয়ার দিচ্ছেন। তারা এ উদ্যোগকে প্রশংসামূলক ও অনুপ্রেরণামূলক হিসেবে মন্তব্য করেছেন। 
 
চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল নোমান নামে এক ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেছেন, নারায়ণগঞ্জ ডিসির এ উদ্যোগ খুবই প্রশংসনীয়। সবাই আমরা এ রকম কাজ করে ভাসমানদের পাশে দাঁড়াতে পারি।
 
নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক হিসেবে মোস্তাইন বিল্লাহ দায়িত্ব নিয়েছেন মাত্র কয়েক মাস আগে। তিনি গণমাধ্যমকে বলেছেন, আসলে এটা আমার একার পক্ষে সম্ভব না। আমরা যদি সবাই মিলে ওই মানুষগুলোর পাশে দাঁড়াই তাহলে রাস্তায় কেউ ইনশাআল্লাহ না খেয়ে থাকবে না। জেলার বিত্তশালী ও শিল্পপতিরা এগিয়ে এলে সমাজে এ ধরনের প্রান্তিক, ভবঘুরে, অসহায় মানুষের সংখ্যা কমে আসবে। 
 
তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে গরিব ও অসহায় মানুষের প্রতি নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের ত্রাণ কার্যক্রম করোনা যত দিন থাকবে তত দিন চলবে।


সাতদিনের সেরা