kalerkantho

বুধবার । ৯ আষাঢ় ১৪২৮। ২৩ জুন ২০২১। ১১ জিলকদ ১৪৪২

'বসুন্ধরার উপহার পাইছি, ঈদ নিয়ে আর চিন্তা নেই'

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, মানিকগঞ্জ   

১১ মে, ২০২১ ২১:৪০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'বসুন্ধরার উপহার পাইছি, ঈদ নিয়ে আর চিন্তা নেই'

নাজিম বয়াতী গ্রাম-গঞ্জে ভাব বৈঠকি আর বাউল গান করেন জীবিকা নির্বাহ করতেন। গেল এক বছর ধরে করোনার প্রার্দুভাবের কারণে কোনো গানের আসর নেই। তাই আয়ের পথ বন্ধ তার। এর মধ্যে শরীরে বাসা বেধেছে অসুখ। সব মিলিয়ে পরিবার নিয়ে কষ্টে দিন কাটছে তার। এর মধ্যে দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্প প্রতিষ্ঠান বসুন্ধার গ্রুপের ঈদ উপহার হাতে পান নাজিম বয়াতী।

বসুন্ধরা খাদ্য সামগ্রী পেয়ে নাজিম বয়াতী বলেন, 'ঈদ করা নিয়া আর চিন্তা নাই, বসুন্ধরা আমাগো খাদ্য সামগ্রী দিছে।'

নাজিম বয়াতীর মত মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার শিবালয় সদর ও তেওতা ইউনিয়েনে আজ মঙ্গলবার দুপুরে বিভিন্ন শ্রেনী পেশার পাঁচ শতাধিক অসহায় দুস্থ কর্মহীনদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছে বসুন্ধরা গ্রুপ। খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল চাল, ডাল, তেল, সেমাই, চিনি, লবন, ছোলা।

শিবালয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিএম রুহুল আমীন রিমনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে এ খাদ্য সহায়তা তুলে দেন মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসক এসএম ফেরদৌস। এছাড়া শিবালয় উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুনা আক্তার, তেওতা ইউনিয়ন পরিষদেও চেয়ারম্যার আব্দুল কাদের, কালের কণ্ঠের স্থানীয় প্রতিনিধি মারুফ হোসেন, ইউনুস আলী মাস্টার, শরৎ বাবু, যুবলীগ নেতা নুরে আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, বসুন্ধরা গ্রুপ আপদকালীন সময়সহ বিভিন্ন জরুরি মুর্হুতে সব সময় অসহায় মানুষের পাশে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেন। সরকারি সহায়তার পাশাপাশি এ সব বড় গ্রুপ আছে বলেই দেশের মানুষ ভালো থাকে। বসুন্ধরা গ্রুপকে বিশেষ ধন্যবাদ জানান তিনি।

খাদ্যে সহায়তা নিতে আসা জামেলা বেগম বলেন, বসুন্ধরা যদি আমাদের খাদ্যে সহায়তা না দিত তাহলে আমাদেও ঈদ করা নিয়ে খুব কষ্ট হত। আল্লাহর কাছে দোয়া করি এই কম্পানির মালিককে ভালো রাখুক। 



সাতদিনের সেরা