kalerkantho

মঙ্গলবার । ১ আষাঢ় ১৪২৮। ১৫ জুন ২০২১। ৩ জিলকদ ১৪৪২

সাংবাদিকের মাকে হত্যাচেষ্টা মামলার এক আসামি গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক   

১১ মে, ২০২১ ২০:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাংবাদিকের মাকে হত্যাচেষ্টা মামলার এক আসামি গ্রেপ্তার

কালের কণ্ঠ অনলাইন সেকশনের সহসম্পাদক কাওসার বকুলের মা খাদিজা বেগমের ওপর ভয়াবহ হামলার ঘটনায় এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে মান্দা থানা পুলিশ। এর আগে এ ঘটনায় নওগাঁর মান্দা থানায় মামলা করেন কাওসার বকুলের বাবা রমজান আলী।

আটককৃত ইসব আলী মান্দার শ্রীরামপুর এলাকার বাসিন্দা। তার বাড়ি থেকে এক কিলোমিটার দূরের একটি জঙ্গল থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তারের পর ইসব আলীকে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। 

এর আগে গতকাল রবিবার মান্দা উপজেলার শ্রীরামপুর গ্রামে সাংবাদিক বকুলের বাড়িতেই হামলার ঘটনাটি ঘটে। আক্রান্ত খাদিজা বেগমের মাথায় হাসুয়া দিয়ে কোপ এবং লাঠি দিয়ে বারবার আঘাত করা হয়। গুরুতর আহত খাদিজা বেগম গতকাল রবিবার থেকে মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

স্থানীয়রা জানান, গতকাল রবিবার ইফতারের পর কাওসার বকুলের মা খাদিজা বেগম বাড়ির উঠোনে একা ছিলেন। তার স্বামী রমজান আলী ধান কাটা উপলক্ষে ছিলেন মাঠে। ওই সময় বাড়ির উঠোনে উপস্থিত হয় একই গ্রামের ইছব আলীর স্ত্রী জোসনা বেগম এবং তার মেয়ে রিয়া। খাদিজা বেগমকে উঠোনে একা পেয়ে জোসনা বেগম তার মাথায় হাসুয়া দিয়ে অতর্কিতভাবে আঘাত করেন এবং রিয়া লাঠি দিয়ে আঘাত করে। মিনিটখানেকের মধ্যে ঘটনাটি ঘটিয়ে খাদিজা বেগম মারা গেছে ভেবে তার দ্রুত সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

জোসনা-রিয়াকে হাসুয়া-লাঠি হাতে কাওসার বকুলদের বাড়ির দিক থেকে যেতে দেখেন প্রতিবেশী জামাল হোসেন এবং আদরী বেগম। তারা খারাপ কিছু আশঙ্কা করে এগিয়ে গিয়ে দেখেন খাদিজা বেগম রক্তাক্ত এবং অজ্ঞান অবস্থায় উঠোনে পড়ে আছেন। পরে প্রতিবেশীরা এসে রক্তাক্ত খাদিজা বেগমকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান।

মান্দা থানার ওসি শাহিনুর ইসলাম জানান, অভিযুক্ত তিনজনের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকি আসামিরা পলাতক রয়েছে। তাদেরকে গ্রেপ্তার করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।



সাতদিনের সেরা