kalerkantho

বুধবার । ৯ আষাঢ় ১৪২৮। ২৩ জুন ২০২১। ১১ জিলকদ ১৪৪২

বুড়িমারী স্থলবন্দর ৬ দিন বন্ধ থাকবে

পাটগ্রাম (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি   

১১ মে, ২০২১ ০০:৫২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বুড়িমারী স্থলবন্দর ৬ দিন বন্ধ থাকবে

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী স্থলবন্দর পবিত্র  ঈদুল ফিতর উপলক্ষে  ছয় দিন আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকছে। এ ছুটির ঘোষণা নিশ্চিত করেছেন বুড়িমারী স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও পাটগ্রাম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রুহুন আমীন বাবুল। তবে এ সময় বুড়িমারী স্থলবন্দর  ইমিগ্রেশন দিয়ে কলকাতায় নিযুক্ত বাংলাদেশি উপ-হাইকমিশন থেকে নো অবজেকশন সার্টিফিকেট (এনওসি) বা অনুমতি নিয়ে আসা পাসপোর্টধারী যাত্রী চলাচল অব্যাহত থাকবে।

বুড়িমারী স্থলবন্দর সূত্র জানায়, পবিত্র  ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বুড়িমারী স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশন ও সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশন যৌথ আলোচনা সভায় ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আগামী বুধবার (১২ মে) থেকে সোমবার (১৭ মে) পর্যন্ত ছয় আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়ে বুড়িমারী স্থলবন্দর কাস্টমস্, বন্দর কর্তৃপক্ষ, পুলিশ ইমিগ্রেশন ও ভারতীয় চ্যাংরাবান্ধা আমদানি- রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশন, সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ওয়েলফেয়ার ও ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনকে চিঠি দিয়েছে। এ কারণে বুড়িমারী স্থলবন্দর দিয়ে এ সময় আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।

বুড়িমারী স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ও বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবু সাইদ নেওয়াজ নিশাত বলেন, পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে উভয় দেশের ব্যবসায়ীদের সিন্ধান্ত অনুযায়ী বুড়িমারী স্থলবন্দর ছয় দিন বন্ধ থাকবে। তবে আগামী মঙ্গলবার (১৮ মে) থেকে যথারীতি আবারো আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম শুরু হবে।

বুড়িমারী স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন পুলিশের কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন বলেন, ইমিগ্রেশন বন্ধের কোনো নির্দেশনা না থাকলে সকাল থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত উপ-হাইকমিশনের এনওসি বা অনুমতি নিয়ে পাসপোর্ট যাত্রী পারাপার হতে পারবে। তবে যারা ফেরত আসবেন তাদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

এ বিষয়ে বুড়িমারী স্থলবন্দর কাস্টমস্ সহকারী কমিশনার (এসি) কেফায়েত উল্যাহ মজুমদার বলেন, ‘ব্যবসায়ী ও পরিবহনে নিযুক্ত ব্যক্তিরা আমদানি-রপ্তাানি না করলে বন্দরের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। তবে এ সময় কাস্টমস্ কার্যালয় খোলা থাকে।



সাতদিনের সেরা