kalerkantho

শুক্রবার । ৪ আষাঢ় ১৪২৮। ১৮ জুন ২০২১। ৬ জিলকদ ১৪৪২

হেফাজত নেতা মামুনুল হক ইস্যুতে দু’পক্ষের বিরোধের জের

সীতাকুণ্ডে বসতঘরে আগুনের ঘটনায় ২০ জনের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেপ্তার ১

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

৯ মে, ২০২১ ২২:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সীতাকুণ্ডে বসতঘরে আগুনের ঘটনায় ২০ জনের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেপ্তার ১

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে সাত বসতঘরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ২০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন এক ভুক্তভোগী। আজ রবিবার দুপুরে মামলাটি দায়ের হয়। এ ঘটনায় পুলিশ এক অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার গভীর রাতে উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের মধ্য বাঁশবাড়িয়া আবুনগর গ্রামে মো. নুরুল আলম বদির ঘরে আগুন জ্বলে উঠে। এতে তার ঘরসহ একে একে পার্শ্ববর্তী ৭টি বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এ ঘটনায় আজ রবিবার দুপুরে একটি মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী নুরুল আলম বদির ছেলে কামরুল হাসান।

এজাহারে বাদী উল্লেখ করেন, গত বুধবার সন্ধ্যায় গ্রামের একটি চায়ের দোকানে টিভিতে খবর দেখার সময় প্রতিপক্ষ মো. সিরাজ মিয়া হেফাজত নেতা মামুনুল হকের পক্ষে ও লকডাউন নিয়ে সরকারের সমালোচনা করায় তার বাবা আ. লীগ কর্মী নুরুল আলম বদি এর প্রতিবাদ করেন। এ নিয়ে সিরাজের সঙ্গে তর্কাতর্কি হলে সিরাজ বদিকে ঘুষি মারেন। পরবর্তী আবারো দলবল নিয়ে তাদের বাড়িতে হামলা করলে তার বাবা ও মা আহত হন। তারা বর্তমানে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

এরই মধ্যে শুক্রবার রাতে আবারো তাদের ঘরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এটি উপরোক্ত ঘটনার জেরে সিরাজ মিয়া গং ঘটিয়েছেন বলে তাদের বিশ্বাস। তাই এ বিষয়ে মামলা দায়ের করেন কামরুল। এতে সুনির্দিষ্ট ১৩ ও অজ্ঞাত ৭ জনকে আসামি করা হয়।

সিরাজ মিয়া (৪৫) ছাড়া অন্য আসামিরা হলেন, জহিরুল ইসলাম (৫০), নুর মোহাম্মদ (৬০), ছালে আহম্মদ (৫৫), মো. নাছির (৬৫), মো. আরমান (২২), মো. রিপন (২৫), শিমুল (২২), হারেছ আহম্মদ ননাই, মাসুদ (২৫), মান্নান (৪৫)। 

এদিকে মামলার পর রবিবার বিকালে মামলার তদন্তকারী অফিসার এস আই আশরাফ অভিযান চালিয়ে এজাহারের ২নং আসামি জহিরুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেছেন। 
সীতাকুণ্ড থানার ওসি (তদন্ত) সুমন বণিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, হেফাজত নেতা মামুনুল হকের পক্ষে বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে বুধবার বিকালে হামলার ঘটনার পর আবার ঘরে অগ্নিকাণ্ড হওয়ায় ভুক্তভোগীরা মামলা দায়ের করেছেন। আমরা এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছি। অন্য আসামিদেরও গ্রেপ্তার করা হবে।



সাতদিনের সেরা