kalerkantho

বুধবার । ৯ আষাঢ় ১৪২৮। ২৩ জুন ২০২১। ১১ জিলকদ ১৪৪২

গলাচিপায় গরু চুরির গুজব রটিয়ে গণপিটুনি, ৭০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিধি   

৮ মে, ২০২১ ১৯:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গলাচিপায় গরু চুরির গুজব রটিয়ে গণপিটুনি, ৭০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

গলাচিপায় জালে ট্রলারের পাখা আটকে যাওয়ায় বাকবিতণ্ডার এক পর্যায় গরু চোরের গুজব রটিয়ে এক পরিবারের ছয়জনকে গণপিটুনি দিয়ে আহত করার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে গলাচিপা রামনাবাদ নদীর গজালিয়া এলাকায়। আহত ওই পরিবারের সদস্যরা গলাচিপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গজারিয়ার সাবেক ইউপি সদস্যসহ চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

অপরদিকে আটজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৬০ থেকে ৭০ জনের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে। ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারের প্রক্রিয়া চলছে। গণপিটুনির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গজালিয়ার সাবেক উপিসদস্য মো. কলিমুল্লা, বেল্লাল হাওলাদার, সুমন মৃধা ও মনিরুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ। গলাচিপা থানার ওসি এমআর শওকত আনোয়ার ইসলাম এসব তথ্য জানান।

ওসি (তদন্ত) আতিকুল ইসলাম জানান, শুক্রবার রাত আনুমানিক সাড়ে ১০টার দিকে পটুয়াখালীর লোহালিয়া ইউনিয়নের হাসেম খা প্রতিবছর মাছ শিকারে পরিবার নিয়ে জেলার কলাপাড়া উপজেলার ধুলারসর এলাকায় যায়। এ বছরও মাছ শিকার শেষে ধুলারসর থেকে গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালীর লোহারিয়ার উদ্দেশ্যে ট্রলার যোগে রওয়ানা হয়। শুক্রবার আনুমানিক রাত সাড়ে ১০টার দিকে রামনাবাদ নদীর ডাকুয়া এলাকার কাছে একটি মাছের জালের সাথে ট্রলারের পাখা আটকে যায়। এ নিয়ে ডাকুয়ার ওই জেলের সাথে বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায় ওই জেলে (গলাচিপার রামনাবাদ নদীতে যার জালে ট্রলারের পাখা আটকে যায়) গরু চোর বলে ডাকচিৎকার দিলে ডাকুয়া, গজালিয়া ও আমখোলার লোকজন ডাকচিৎকার দিয়ে হাসেম খার ট্রলার আটক করে। ট্রলারে গরু, হাস-মুরগী দেখতে পেয়ে লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। এ সময় গণপিটুনিতে  হাসেম খান (৬৫), শাহাবুদ্দিন খান (৩৫), শহিদুল খান (৩০), বাহাদুর খান (২৮), ছিদ্দিক খান (৪৫), সেন্টু খান (২০) গুরুত্বর আহত হয়। পরে পুলিশ খবর পেয়ে গজালিয়া ইউনিয়নের চরচন্দ্রাইল এলাকা থেকে আহতদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য গলাচিপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ওসি আরো বলেন, জড়িতদের কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে। এ ঘটনায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে।



সাতদিনের সেরা