kalerkantho

শনিবার । ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১২ জুন ২০২১। ৩০ শাওয়াল ১৪৪২

বিএনপি নেতা শামীম আহমেদকে বহিষ্কার, প্রতিবাদে বিক্ষোভ

জামালপুর প্রতিনিধি   

৮ মে, ২০২১ ০৪:৩২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিএনপি নেতা শামীম আহমেদকে বহিষ্কার, প্রতিবাদে বিক্ষোভ

জামালপুর জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও বর্তমান জেলা কমিটির সদস্য শামীম আহমেদকে বিএনপি থেকে বহিষ্কার করেছে কেন্দ্রীয় বিএনপি। শুক্রবার (৭ মে) বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু স্বাক্ষরিত একপত্রে এই বহিষ্কারাদেশের বিষয়টি উল্লেখ রয়েছে। এর প্রতিবাদে রাতে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন শামীম আহমেদ ও তার সমর্থকরা।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির দেওয়া ওই বহিষ্কারাদেশে শামীম আহমেদকে উদ্দেশ্য করে বলা হয়েছে, আপনার বিরুদ্ধে উত্থাপিত সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে দলীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক আপনাকে কারণ দর্শানোর নোটিশের জবাব সন্তোষজনক না হওয়ায় বিএনপির গঠনতন্ত্রের ৫ (গ) ধারা মোতাবেক নির্দেশক্রমে বিএনপি জামালপুর জেলা শাখার সদস্য পদ থেকে অব্যাহতি প্রদানপূর্বক দলের প্রাথমিক সদস্য পদ বাতিল করে আপনাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

এদিকে শামীম আহমেদকে বিএনপি থেকে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাখ্যান করেছেন খোদ শামীম আহমেদ ও তার সমর্থক বিএনপি ও অঙ্গ দলের নেতাকর্মীরা। তারা শুক্রবার রাত ১০টার দিকে শহরের সকাল বাজারে শামীম আহমেদের ব্যক্তিগত দলীয় কার্যালয় থেকে শহরের প্রধান সড়কে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা জেলা বিএনপির সভাপতি ফরিদুল কবীর তালুকদার শামীম ও সাধারণ সম্পাদক শাহ মো. ওয়ারেছ আলী মামুনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন উত্তপ্ত শ্লোগন দেন। মিছিল থেকে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা শামীম আহমেদকে বিএনপি থেকে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবি জানান। অন্যথায় বর্তমান জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে বৃহত্তর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণার ইঙ্গিত দেন বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা।

জেলা বিএনপি থেকে সদ্য বহিষ্কৃত বিএনপি নেতা শামীম আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, বিএনপির জেলা কমিটির সভাপতি ফরিদুল কবীর তালুকদার শামীম ও সাধারণ সম্পাদক শাহ মো. ওয়ারেছ আলী মামুনের কাছে পদবঞ্চিত দলের ত্যাগী নেতাকর্মীরা দীর্ঘদিন ধরে জিম্মি হয়ে আছে। তারা দু’জন দলকে কুক্ষিগত করে রেখেছেন। এসব নিয়ে বিভিন্ন সময়ে আমি এবং আমার সমর্থক দলীয় নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ জানিয়েও কোনো ফল পাওয়া যায়নি। কেন্দ্রীয় বিএনপি আমাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছিল। আমি সন্তোষজনক জবাব দিয়েছি। এরপরও আমাকে বহিষ্কার করার কোনো কারণ দেখছি না। দলীয় চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার গুরুতর অসুস্থতার মুহূর্তে এবং তার ছেলে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সিদ্ধান্তের বাইরে আমাকে যেভাবে বহিষ্কার করেছে, তা দলীয় গঠনতন্ত্র মোতাবেক হয়নি। আমাকে বহিষ্কারের আদেশ প্রত্যাহার করে নেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।

এদিকে শামীম আহমেদকে বহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহ মো. ওয়ারেছ আলী মামুন কালের কণ্ঠকে বলেন, শামীম আহমেদ বরাবরই বিএনপির জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে দলীয় গঠনতন্ত্রবিরোধী কার্যকলাপে লিপ্ত রয়েছেন। সর্বশেষ গেল জামালপুর পৌরসভা নির্বাচনে আমি বিএনপি দলীয় ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মেয়র পদে নির্বাচনে অংশ নেই। সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সঙ্গে প্রকাশ্যে আঁতাত করে আমার বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে বিক্ষোভ মিছিল, কুশপুত্তলিকা পোড়ানোসহ দলীয় শৃংখলা পরিপন্থী কার্যকলাপ করেন শামীম আহমেদ। বিষয়টি নিয়ে জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দের কাছে অভিযোগ করেছিলাম। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় বিএনপি শামীম আহমেদকে কারণ দর্শানোর নোটিশ করে। কিন্তু সেই নোটিশের জবাব সন্তোষজনক হয়নি বিধায় দলের গঠনতন্ত্র মোতাবেক তাকে বিএনপি থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

সদ্য বহিষ্কৃত বিএনপি নেতা শামীম আহমেদ। ছবি : কালের কণ্ঠ



সাতদিনের সেরা