kalerkantho

মঙ্গলবার । ৮ আষাঢ় ১৪২৮। ২২ জুন ২০২১। ১০ জিলকদ ১৪৪২

'এমন কোনো অভাবী মানুষ নেই যার হাতে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ পৌঁছেনি'

ভোলা প্রতিনিধি   

৭ মে, ২০২১ ১৯:৪২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



'এমন কোনো অভাবী মানুষ নেই যার হাতে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ পৌঁছেনি'

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও ভোলা-০১ আসনের সংসদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, করোনাকালীন সময়ে প্রধানমন্ত্রীর গৃহীত পদক্ষেপ বাস্তবসম্মত। তাঁর গৃহীত পদক্ষেপ আন্তর্জাতিক বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছে। মানুষ সেটা গ্রহণ করেছে। আস্তে আস্তে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে। আমাদের গ্রাম-গঞ্জে এমন কোনো অভাবী মানুষ নাই প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ সহায়তা পায়নি। তিনি বাস্তবমুখী বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। গরিব মানুষকে নগদ অর্থ দিয়েছেন, কোটি কোটি টাকার ত্রাণ বিতরণ করেছেন।

আজ শুক্রবার বিকেলে ভোলা সদর উপজেলার দক্ষিণ দীঘলদি ইউনিয়নে করোনায় কর্মহীন ও দুস্থদের মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তোফায়েল আহমেদ তার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে সদর উপজেলার ১৩ ইউনিয়ন ও পৌরসভায় ১০ হাজার দরিদ্র মানুষের মাঝে আর্থিক অনুদান বিতরণ ও ৩ হাজার পরিবারকে খাদ্যসহায়তার উদ্বোধন করেন।

তিন হাজার মানুষের মধ্যে সব পেশাজীবী মানুষকে আওতায় আনা হবে। শুক্রবার থেকে আগামী ১০ মে পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে এসব ত্রাণ ও অর্থ সহায়তা বিতরণ করা হবে। গত বছর করোনা মহামারির সময় তোফায়েল আহমেদের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৪০ হাজার অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ করেন।

বঙ্গবন্ধুর সাবেক রাজনৈতিব সচিব আরো বলেন, ভোলার মানুষ আমার একান্ত আপন। আপনাদের ভালোবাসায়ই আমি আটবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছি। আপনাদের পাশে আমি আছি সারা জীবন। আমি জেলে থাকার কারণে কয়েকটি ঈদ ভোলায় করতে পারিনি। এ ছাড়া জীবনের প্রতিটি ঈদ আপনাদের সঙ্গে মায়ের কাছে উদযাপন করার জন্য ভোলায় চলে এসেছি। করোনা মহামারির কারণে আবার এ দুবছর আসতে পারিনি। তবে আমার মনটা আপনাদের কাছেই পড়ে আছে। ইনশাআল্লাহ, একদিন এ আঁধার কেটে যাবে, আমরা আবার মনের আনন্দে ঈদ উদযাপন করব। ভোলাতে আমরা চারজন সংসদ সদস্যই এলাকার মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছি।

সাবেক ডাকসুর ভিপি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীর মসজিদের ইমাম থেকে শুরু করে খেটে খাওয়া প্রতিটি মানুষের কথা মনে আছে। আজকে প্রধানমন্ত্রী শুধু এ দেশের মানুষকে খাদ্য সহয়াতাই দিচ্ছেন না, সাথে সাথে বাসস্থানের কথাও চিন্তা করছেন। একজন মানুষও মুজিবশতবর্ষে গৃহহীন থাকবে না।

তোফায়েল আহমেদের পক্ষে দুস্থদের মাঝে অর্থ সহায়তা বিতরণ করেন তোফায়েল আহমেদের পুত্র, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদ সদস্য খায়রুল হাসান খোকনসহ অনেকে।



সাতদিনের সেরা