kalerkantho

মঙ্গলবার । ৮ আষাঢ় ১৪২৮। ২২ জুন ২০২১। ১০ জিলকদ ১৪৪২

গফরগাঁওয়ে ঈদ উপহার নিয়ে অসহায়দের পাশে বসুন্ধরা

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

৭ মে, ২০২১ ১৮:২৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গফরগাঁওয়ে ঈদ উপহার নিয়ে অসহায়দের পাশে বসুন্ধরা

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে প্রতিবন্ধী, বিধবা, ভিক্ষুক, রিকশাচালক, দিনমজুর, গৃহকর্মী, হকারসহ শত শত অসহায় ছিন্নমূল মানুষের মধ্যে ঈদ উপহার বিতরণ করেছে বসুন্ধরা শিল্পগ্রুপ। আজ শুক্রবার বিকালে পৌর শহরের ইসলামিয়া সরকারি হাইস্কুল মাঠে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এসব বিতরণ করা হয়। এর পূর্বে উপজেলা শুভসংঘের পক্ষ থেকে উপকারভোগীদের মধ্যে মাস্ক বিতরণ করা হয়। 

উপজেলা শুভসংঘের সভাপতি আব্দুল হামিদ বাচ্চুর সভাপতিত্বে উপহার বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আশরাফ উদ্দিন বাদল, পৌর মেয়র এসএম ইকবাল হোসেন সুমন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আতাউর রহমান, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও শুভসংঘের প্রধান উপদেষ্টা ডা. কেএম এহসান, ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হক ঢালী, উপজেলা যুবলীগ নেতা প্রভাষক আতিকুর রহমান, গফরগাঁও বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী মাজহারুল এহসান মোরাদ, মো. জোবায়েদ হোসেন সুমন, আওয়ামী লীগ নেতা হাজী আব্দুল কুদ্দুস, ইউপি সদস্য ফারুক আহমেদ, শুভসংঘের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক গোলাম মোহাম্মদ ফারুকী, সাংগঠনিক সম্পাদক বুলবুল হোসেন, কোষাধ্যক্ষ শ্রী অনীল রায়, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও পৌর কাউন্সিলার পারভীন আক্তার, ইউপি সদস্য হযরত আলী, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক আওরঙ্গ হেলাল, পৌর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক তাজমুন আহমেদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম মন্ডলসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা। 

বসুন্ধরা গ্রুপের উপহার সামগ্রী পেয়ে অসহায়, ছিন্নমূল মানুষ আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। প্রতিটি ২৫ কেজির প্যাকেটে ছিল চাল, ডাল, তেল, সেমাই, চিনি, ছোলা, লবণ।

পৌর শহরের শিলাসী এলাকার অসহায় গৃহবধূ সুমা আক্তার তার চার মাস বয়সী শিশুপুত্রকে কোলে নিয়ে উপহার সামগ্রী নিতে এসেছেন। তিনি বলেন, 'স্বামী চডের কম্পানিতে চাকরি করে। করোনার লাইগ্যা কম্পানি বন্ধ। অহন খাইয়া না খাইয়া দিন চলে। এই দুঃখের দিনে বসুন্ধরা অতগুলাইন জিনিস দিছে। ঈদটা ভালা কইরা করুন যাইবো।

চর শিলাসী এলাকার বৃদ্ধা রোকসানা বেগম (৭০) বলেন, এই বিপইদের সময় সেমাই, চিনি, তেল কত কিছু দিছে। আল্লা তাগর ভালা করবো।

কলেজ রোডের চা বিক্রেতা নূরুল ইসলাম (৭২) বলেন, একদিগে করোনা আরেগ দিগে রোজার লাইগ্যা দোহান বন্ধ। বৌ পুলাপান লইয়া কি কইরা যে দিন চলে আল্লাই জানে! বসুন্ধরা যে জিনিস দিছে আর ঈদের চিন্তা নাই।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আশরাফ উদ্দিন বাদল বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সামর্থ্যবান সকলকেই অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন। সরকারও সামাজিক বিভিন্ন সুরক্ষা কর্মসূচির মাধ্যমে অসহায় মানুষকে সহায়তা করছেন। করোনাকালীন এই দুঃসময়ে বসুন্ধরা শিল্পগ্রুপ অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে অনন্য নজির স্থাপন করেছেন। অবশ্যই এটি মানবিক সেবা।

পৌর মেয়র এসএম ইকবাল হোসেন সুমন বলেন, মহামারী করোনা তৃণমূল পর্যায়ে নানা শ্রেণী-পেশার মানুষকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। অনেকে কর্মহীন হয়েছেন। আয়-রোজগার কমেছে। সরকারের পাশাপাশি বসুন্ধরা গ্রুপ মানবিক সেবায় এগিয়ে এসেছে। সে জন্য তাদের ধন্যবাদ জানাই।

উপজেলা শুভসংঘের সভাপতি আব্দুল হামিদ বাচ্চু বলেন, কালের কণ্ঠ শুভসংঘের স্লোগানই হলো ‘শুভ কাজে সবার পাশে’। দেশের অন্যতম সেরা বসুন্ধরা শিল্পগ্রুপ যেমন লাখো মানুষের কর্মসংস্থান তৈরি করে তেমনি সব সময় কল্যাণমূলক কর্মকাণ্ডের উদ্যোক্তা তারা। করোনার এই দুঃসময়ে শত শত মানুষের মুখে হাঁসি ফুটিয়ে মহৎ দৃষ্টান্ত তৈরি করেছে। 

উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও শুভসংঘের প্রধান উপদেষ্টা ডা. কেএম এহসান বলেন, দেশের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের অংশিদার বসুন্ধরা শিল্পগ্রুপ লাখ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান করেছেন। আবার মহামারি করোনায় অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। মহান আল্লাহ সবার মঙ্গল করুন।



সাতদিনের সেরা