kalerkantho

সোমবার । ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৪ জুন ২০২১। ২ জিলকদ ১৪৪২

হাতের মেহেদি না মুছতেই লাশ হলো স্বর্ণা

দেবীদ্বার (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

৬ মে, ২০২১ ১৭:৪২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাতের মেহেদি না মুছতেই লাশ হলো স্বর্ণা

হাতের মেহেদির রং না মুছতেই মিলল নববধূ স্বর্ণা আক্তার মিমের (১৮) ঝুলন্ত লাশ। প্রেমের বিয়ে তাই মেনে নেয়নি শ্বশুরবাড়ির লোকজন। স্বামীর বাড়ি যাওয়ার অনিশ্চয়তায় ক্ষোভে তিনি পিতার বাড়িতে আমগাছে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নেন।

ঘটনাটি ঘটে গতকাল বুধবার দিবাগত রাতে দেবীদ্বার উপজেলার ধামতী (উত্তরপাড়া) গ্রামের ফকির বাড়ির পাশে। সংবাদ পেয়ে দেবীদ্বার থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করেছে। তবে পরিবারের দাবি এটি আত্মহত্যা নয়, তাকে হত্যা করে গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে লাশ দেখতে ওই বাড়িতে উৎসুক জনতা ভিড় জমায়।

স্থানীয়রা জানায়, গত ১৯ এপ্রিল স্বর্ণার সাথে একই গ্রামের রহিম মাস্টার ছেলে মো. কামরুল হাসানের সাথে। প্রেমের সম্পর্কের কারণে তাদের কোর্টে বিয়ে হয়। ছেলের পরিবার এ বিয়ে মেনে না নেওয়ায় মিম তার বড় বোনের বাসায় থাকতেন।

নিহতার স্বামী মো. কামরুল হাসান জানান, আমার স্ত্রীর সাথে বিয়ের পর থেকে এ পর্যন্ত কোনো পারিবারিক কলহ ছিল না। রাত ১২টার দিকে তার সাথে ফোনে কথা বলছি।

দেবীদ্বার থানার ওসি মো. আরিফুর রহমান জানান, নিহতার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। তবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা ময়নাতদন্তের রির্পোট পেলেই নিশ্চিত করে বলা যাাবে। তবে বিষয়টি তদন্তাধীন। 



সাতদিনের সেরা