kalerkantho

শনিবার । ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১২ জুন ২০২১। ৩০ শাওয়াল ১৪৪২

দিরাইয়ে হাওর থেকে মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধারের ঘটনায় আটক ৬

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি   

৬ মে, ২০২১ ০১:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দিরাইয়ে হাওর থেকে মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধারের ঘটনায় আটক ৬

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ের বরাম হাওর থেকে মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধারের চার দিন পর নৃশংস খুনের ঘটনায় ৬ জনকে আটক করেছে র‍্যাব-৯ সুনামগঞ্জ। গত ১ মে রাতে জলাশয় থেকে মঙ্গলপুর গ্রামের দুদু মিয়া (৪১) নামক এক যুবকের মস্তকবিহীন ৬ টুকরো লাশ উদ্ধার করেছিল পুলিশ। তবে লাশটি অজ্ঞাতনামা হিসেবে পোস্ট মর্টেম করা হয়।

এ ঘটনায় আটককৃতরা হলেন- ইসলামপুর গ্রামের আল বাহার বেগম, ভাঙ্গা গ্রামের সত্যরঞ্জন দাস, নরোত্তমপুর গ্রামের নাসির উদ্দিন, দাউদপুর গ্রামের নাজমুল হোসাইন, নরোত্তমপুরের লুৎফুর রহমান ও ভাঙ্গাডহর গ্রামের আব্দুল বারেক। 

র‌্যাব-৯ সুনামগঞ্জ ক্যাম্পের অধিনায়ক লে. কমান্ডার সিঞ্চন আহমেদ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বুধবার সন্ধ্যায় এই ৬ জন নৃশংস হত্যকাণ্ডে জড়িত বলে জানানো হয়। আটককৃত ৬ জন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছে।

তারা জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, মঙ্গলপুর গ্রামের দুদু মিয়ার সঙ্গে কবির মিয়া নামক এক ব্যক্তির আর্থিক লেনদেন নিয়ে শত্রুতা ছিল। দুদু মিয়া ও তার স্বজনরা কবিরকে সামাজিকভাবে হেয় করে এবং অপমান করে। এর প্রতিশোধ নিতে কবির সহযোগীদের নিয়ে দুদুকে হত্যা করে। পরে লাশ কেটে ৬ টুকরো করে বরাম হাওরের জলাশয়ে ফেলে দেয়। তবে এ ঘটনার মূল হোতা কবিরকে আটক করা সম্ভব হয়নি। তার ভাই নাজমুলকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় আরেক ঘাতক দোলন মিয়াও পালিয়ে গেছে।

গত ১ এপ্রিল রাতে দিরাই উপজেলার তাড়ল ইউনিয়নের মঙ্গলপুর গ্রামের জলাশয় থেকে অজ্ঞাতনামা হিসেবে মঙ্গলপুরের দুদু মিয়ার মস্তকবিহীন ৫ টুকরো লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরদিন সকালে এলাকার একটি পুকুর পাড় থেকে লাশের ক্ষতবিক্ষত মাথা উদ্ধার করা হয়। গত ২৯ এপ্রিল দুপুর থেকে নিখোঁজ ছিলেন দুদু মিয়া (৪১)। তার স্বজনরা এ ব্যাপারে থানায় জিডিও করেছিলেন।

র‍্যাব অধিনায়ক সিঞ্চন আহমদ বলেন, দুদু মিয়াকে নৃশংসভাবে তারা হত্যা করেছে বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছে। আমরা তাদেরকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করব।



সাতদিনের সেরা