kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ বৈশাখ ১৪২৮। ৭ মে ২০২১। ২৪ রমজান ১৪৪২

করোনা রোগীদের বাড়ি বাড়ি ছুটছেন মেয়র চলন্ত

হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি   

৩০ এপ্রিল, ২০২১ ১১:০৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনা রোগীদের বাড়ি বাড়ি ছুটছেন মেয়র চলন্ত

নিজেই খাদ্য সামগ্রী নিয়ে করোনা আক্রান্তদের বাড়িতে বাড়িতে ছুটছেন মেয়র চলন্ত। ছবি: কালের কণ্ঠ

করোনাভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের মোকাবেলায় সরকার ঘোষিত কঠোর বিধি নিষেধ চলছে দেশজুড়ে। করোনার প্রভাব পড়েছে উত্তরাঞ্চলের জেলা দিনাজপুরেও। সেখানে প্রতিদিন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। এমন পরিস্থিতিতে হাকিমপুর হিলি পৌরসভা এলাকায় করোনা আক্রান্ত রোগীদের দেখতে ও সাহায্য পৌঁছে দিতে বাড়ি বাড়ি ছুটে চলছে মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত। নিচ্ছেন তাঁদের খোঁজ-খবর।

পৌর মেয়র চলন্ত করোনাকে ভয় না করে নিজেই ছুটে যাচ্ছেন আক্রান্ত রোগীদের বাড়িতে বাড়িতে। দিচ্ছেন নগদ অর্থসহ খাদ্য সহায়তা। করোনাকালে একাধিক হতদরিদ্র রোগীর পরিবারকে নগদ অর্থ, খাদ্য সামগ্রী ও ভিটামিন জাতীয় ফল প্রদান করেন তিনি। আক্রান্ত  ব্যক্তি ও তাদের পরিবারের খোঁজ খবর নেন এবং সবসময় তাদের পাশে থাকার জন্য সবাইকে আহবান জানান।

পৌর এলাকার করোনা আক্রান্ত এক ব্যাক্তি বলেন, পৌর মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত জিবনের ঝঁকি নিয়ে আমাদের দেখতে আসেন। সব সময় মুঠোফোনে খোঁজ-খবর রাখেন।

হাকিমপুর (হিলি) পৌর মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত  বলেন, যাদের কাছে আমি ভোট চেয়ে মেয়র হয়েছি। তাদের এই দূর্দিনে পাশে থাকা আমার ঈমানি দায়িত্ব। করোনা মহামারি রোগীদের করুনা নয়, ভালবাসা নিয়ে তাদের পাশে থাকতেই চাই। আমি নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তাদের বাড়িতে যাচ্ছি। করোনা আক্রান্ত ব্যাক্তিরা আমাদেরই স্বজন। তাদেরকে অবহেলা কিংবা অবজ্ঞা নয়। তাদের জন্য আমাদের মানবিক দৃষ্টি সজাগ রাখতে হবে। তাদের হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করতে সহযোগিতা প্রয়োজন।

তিনি আরো বলেন,পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ বৃদ্ধি পাওয়ায় হাকিমপুর পৌরবাসীর ও দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে সাময়িক আমদানি-রপ্তানি বন্ধের জন্য দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের কাছে প্রস্তাব দিয়েছি।

করোনা আক্রান্ত পরিবারগুলো যেন মানসিক ও সমাজিক হেনস্তা শিকার না হয় তার জন্য এলাকাবাসীকে সচেতন করতে কাজ করে যাচ্ছি। আতঙ্কিত না হয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে করোনা জয় করা সম্ভব বলে মনে করেন তিনি।



সাতদিনের সেরা