kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

বিয়ানীবাজারে নাগা মরিচের ফলনে হাসছে কৃষক

বিয়ানীবাজার (সিলেট) প্রতিনিধি   

২৮ এপ্রিল, ২০২১ ১৭:৫৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিয়ানীবাজারে নাগা মরিচের ফলনে হাসছে কৃষক

সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার প্রত্যন্ত বাড়িতে এবার বোম্বাই মচির (নাগা মরিচের) বাম্পার ফলন হয়েছে। বাসা বাড়ির আঙ্গিনায়, টবে উৎপাদিত এসব নাগা মরিচ স্থানীয় চাহিদা মিটিয়েও বিক্রি হচ্ছে পার্শ্ববর্তী উপজেলায় বিক্রি হয়। সিলেটের মুখরোচক খাবার শুটকি শিরার সাথে গন্ধ, স্বাদযুক্ত ও ঝাল নাগা মরিচ না হলে যেন সিলেটিদের চলেই না। তাই এখানকার প্রতিটি বাড়ি আঙ্গিনায় নাগার মরিচের গাছ শুভা পায়।

সরেজমিন উপজেলার কয়েকটি বাড়ি ঘুরে দেখা যায়, প্রায় প্রতিটি বাড়ির আঙ্গিনায় নাগার মরিচের আবাদ করা হয়েছে। এখানে কেউ বাণিজ্যিকভাবে নাগা মরিচ চাষ না করলেও প্রচুর পরিমাণ ফলন হয়েছে এবার নাগা মরিচের। অনেকে শখের বসে বাড়ির আঙ্গিনায় লাগিয়ে টাকা আয় করছেন। তবে এবার ফলন ভালো হওয়ায় আগামীতে বাণিজ্যিকভাবে নাগা মরিচ চাষের দিকে যুকছেন তারা। পৌরসভা ও লাউতা ছাড়া উপজেলার প্রতিটি বাড়িতে নাগা মরিচের গাছ চোখে পড়ে। ফুল আর কাঁচা-পাকা নাগা মরিচে ভরে ওঠেছে সবক’টি বাগান। গাছের নিরাপত্তার জন্য জাল দিয়ে বেড়া তৈরি করে প্রতিটি ক্ষেতের নিরাপত্তা বেষ্টনি গড়ে তোলা হয়েছে। বর্তমানে বাজারে প্রতি হালি নাগা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ১০ টাকা করে। সময় বেদে প্রতি পিস মরিচ ১০টা করেও বিক্রি হতে দেখা যায়। তবে প্রবাসী অধ্যষিত এলাকা হওয়ায় এখানকার প্রবাসীদের প্রথম পছন্দ নাগা মরিচ। অনেকে শখ করেও প্রবাসে নিয়ে যান এসব মরিচ।

লাউতা এলাকার নাগা মরিচ চাষি পারভিন বেগম জানান, তার বাড়ি আঙ্গিনায় ১০০টি নাগা মরিচের গাছ রয়েছে। তিনি শখের বসে বাগান করেছে তার পরিবারে নাগা মরিচের চাহিদা থাকায় তিনি বাগান করেছেন। তবে বর্তমানে নাগা মচির থেকে তিনি খুঁজে পেয়েছেন আয়ের পথ। প্রতি হালি নাগা মরিচ ১০ টাকা করে তিনি বিক্রি করছেন। এ বছর তিনি ১০ হাজার টাকার মরিচ বিক্রি করেছেন বলে জানান। আগামীতে তিনি বাণিজ্যিকভাবে চাষের পরিকল্পনা করছেন।

কথা হয় পৌরশহরের পোস্ট অফিস রোড়ে সামনে নাগা মরিচের পসরা সাজিয়ে বসে থাকা বিক্রেতা আলি আহমদের সাথে, তিনি প্রতি হালি নাগা মরিচ ১৫ টাকা দরে বিক্রি করছেন। আবার কেউ বেশি নিতে চাইলে ১০-১২ টাকা করেও বিক্রি করছেন। তিনি উপজেলার লাউতা ইউনিয়নের কয়েকটি বাড়ি থেকে মরিচগুলো সংগ্রহ করে বিক্রি করছেন।

বিয়ানীবাজার উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আরিফুজ্জামান, বিয়ানীবাজারে বোম্বাই মরিচের কেউ বাণিজ্যিকভাবে চাষ করে না। তবে প্রতিটি বাড়ির আঙ্গিনায় ব্যাপকভাবে চাষ হয়। এখানে প্রচুর চাহিদা রয়েছে এই মরিচের। আগামীতে এই মরিচ বাণিজ্যিকভাবে চাষের জন্য আমরা কৃষকদের উৎসাহিত করব। 



সাতদিনের সেরা