kalerkantho

বুধবার । ২৮ বৈশাখ ১৪২৮। ১১ মে ২০২১। ২৮ রমজান ১৪৪২

ধর্মপাশায় রডবোঝাই লরির নিচে চাপা পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

হাওরাঞ্চল প্রতিনিধি    

২৮ এপ্রিল, ২০২১ ১৬:৩০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ধর্মপাশায় রডবোঝাই লরির নিচে চাপা পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার মধ্যনগরে রডবোঝাই একটি লরির নিচে চাপা পড়ে মানিক খাঁ (৪০) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। নিহত শ্রমিক উপজেলার চামারদানী ইউনিয়নের জলুসা গ্রামের মৃত রাশিদ খাঁর   ছেলে।

তিনি গত প্রায় ১ মাস ধরে উপজেলার রামদীঘা একতা উচ্চ বিদ্যালয়ের নির্মাণাধীন ভবনের কাজে শ্রমিক হিসেবে নিয়োজিত ছিলেন।

গতকাল মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে পাশের নেত্রকোণা জেলা সদর থেকে ভাই ভাই ট্রেডার্স নামের একটি লরিতে রডবোঝাই করে রামদীঘা একতা উচ্চ বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে মধ্যনগর গোদারা ঘাট সংলগ্ন পিপঁড়াকান্দা নামক স্থানে লরিটি উল্টে যায়। 
 
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চামারদানী ইউনিয়নের রামদীঘা একতা উচ্চ বিদ্যালয়ে মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের অর্থায়নে প্রায় ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ৪ তলা বিশিষ্ট একটি ভবন নির্মাণের দায়িত্ব পান বাগেরহাটের মেসার্স  শফিক ট্রেডার্স নামক একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান।

এ ভবন নির্মাণকাজে গত প্রায় ১ মাস ধরে শ্রমিক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন মানিক খাঁ। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মালামাল বহনের কাজ করে আসছিল ওই লরি। গতকাল রাত ১১টার দিকে মালামাল আনা-নেওয়ার কাজে লরিটি পাশের নেত্রকোনা জেলা সদর থেকে রডবোঝাই করে ওই বিদ্যালয়ের উদ্দেশে রওনা দেয়। এ সময় শ্রমিক মানিক খাঁ ওই লরিতে থাকা রডের ওপর বসেছিলেন। পরে লরিটি উপজেলার মধ্যনগর গোদারাঘাট সংলগ্ন পিপঁড়াকান্দা নামক স্থানে পৌঁছার পর বাঁধের ওপরে ওঠার সময় উল্টে যায়। এ সময় লরির নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান শ্রমিক মানিক খাঁ। পরে খবর পেয়ে মধ্যনগর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় লরির নিচ থেকে মানিক খাঁর মৃত দেহটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

মধ্যনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নির্মল চন্দ্র দে এ  ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সুপারিশসহ এ ব্যপারে  নিহতের পরিবারের কোনো অভিযোগ না থাকায় এবং তাদের  আবেদনের প্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই বুধবার দুপুরে নিহতের লাশ তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা