kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

নবজাতক ও প্রসুতি মায়ের মৃত্যু

তালায় রোগীর স্বজনদের হাতে দুই চিকিৎসকসহ নার্স লাঞ্ছিত

তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি   

২১ এপ্রিল, ২০২১ ০৯:২২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তালায় রোগীর স্বজনদের হাতে দুই চিকিৎসকসহ নার্স লাঞ্ছিত

সাতক্ষীরার তালা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নবজাতক ও প্রসূতি মায়ের মৃত্যুর ঘটনায় রোগীর স্বজনদের হাতে দুজন চিকিৎসকসহ কয়েকজন নার্স ও স্টাফ শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) সন্ধ্যায় সাড়ে ৭টায় তালা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

হাসপাতাল সুত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) সকালে উপজেলার হাজরাকাটী গ্রামের শাহাবুদ্দীন সরদারের স্ত্রী গর্ভবতী দিনা বেগম (৩০) কে জরুরি সিজারিয়ান অপারেশনের জন্য সকাল সাড়ে ১০টায় তালা হাসপাতালে ভর্তি করেন স্বজনরা। বিকালে ওটিতে অপারেশন শুরুর পুর্বেই রোগীর অক্সিজেন আশঙ্কাজনক হারে কমতে থাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিক্যালে রেফার করা হয়। এতে রোগীর স্বজনরা উত্তেজিত হয়ে হাসপাতালে অপারেশন থিয়েটারের ভেতর ঢুকে দায়িত্বরত ডা. অতনু ঘোষ ও ডা. ফারহা ফেরদৌসীসহ নার্স ও স্টাফদের শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ সাথে সাথে হাসপাতালে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। এদিকে রাতেই খুলনা মেডিক্যালে নেওয়ার পথে প্রসূতি দিনা বেগম সন্তান প্রসব করেন, কিছুক্ষণ পরেই নবজাতক ও মা দুজনেই মারা যান।

প্রসূতি দিনা বেগমের দেবর গিয়াসউদ্দীন জানান, তার ভাবিকে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তালা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে তাকে কোনো চিকিৎসা না দিয়ে ফেলে রাখা হয়। হাসপাতালের নার্সদের কয়েক দফা অনুরোধ করলেও ডাক্তার পরে আসবে বলে জানায়। বিকেল ৪টার দিকে প্রসূতির অবস্থার মারাত্মক অবনতি হলে নার্সরা তড়িঘড়ি কর্তব্যরত চিকিৎসককে ডেকে আনেন। ডাক্তার এসে প্রসূতিকে সিজার করার সিদ্ধান্ত নেন। এ সময় তার শরীরে চেতনানাশক ইনজেকশন পুশ করা হলেও প্রসূতি অজ্ঞান হয়নি। পরে তাকে আরো একটি চেতনানাশক ইনজেকশন দেয়া হয়। এ সময় প্রসূতি অবস্থা সঙ্কটাপন্ন হয়ে ওঠে। অবস্থা বেগতিক দেখে সিজার না করে প্রসূতিকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। খুলনায় নেয়ার পথে প্রসুতি দিনা বেগম সন্তান প্রসব করেন এবং নবজাতক ও মা দুজনেই মারা যান।

গিয়াসউদ্দীনের দাবি অবহেলা ও ডাক্তাদের ভুল চিকিৎসায় তার ভাবি ও নবজাতক সন্তান মারা গেছেন। তবে হাসপাতালের মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনার জন্য তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন।

তালা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সহকারী সার্জন ডা. অতনু ঘোষ জানান, ওটিতে গর্ভবতী ওই রোগীর ব্লাড প্রেসার ও অক্সিজেন আশঙ্কাজনক হারে কমতে থাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিক্যালে রেফার করা হয়। এ সময় রোগীর স্বজনরা তাকে ও কর্তব্যরত মহিলা ডা. ফারহা ফেরদৌসীসহ নার্স ও স্টাফদের শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পক্ষ থেকে বিষয়টি লিখিতভাবে থানায় অবহিত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

তালা থানার ওসি মো. মেহেদী রাসেল জানান, রোগীর স্বজনদের হাতে চিকিৎসকসহ কয়েকজন নার্স ও স্টাফ শারীরিকভাবে লাঞ্ছিতের খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। পরে নবজাতক ও প্রসুতি মা মারা যাওয়ার খবরে হাসপাতালে ফের স্বজনদের মঝে উত্তেজনা দেখা দিলে পুলিশের সহায়তায় পরিস্থিতি শান্ত করা হয়। তালা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



সাতদিনের সেরা