kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

অর্থাভাবে নিভে যাবে নুরুজ্জামানের জীবনপ্রদীপ?

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

২০ এপ্রিল, ২০২১ ১০:২৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অর্থাভাবে নিভে যাবে নুরুজ্জামানের জীবনপ্রদীপ?

অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত ভ্যানচালক নুরুজ্জামান। ছবি: কালের কণ্ঠ

মধ্যবয়সী নুরুজ্জামান (৪২) পরিশ্রমী মানুষ। গায়ে-গতরে শক্তি থাকায় ভ্যান চালিয়ে সংসার চলাতে তাই সমস্যায় পড়তে হয়নি কখনো। স্ত্রী-সন্তান নিয়েই ভালোই দিন পার করতে থাকা সেই নুরুজ্জামান আজ সাহায্য প্রার্থী। অজ্ঞাত রোগে চলাফেরা বন্ধ হয়ে গেছে যেন তার। দিনে দিনে শরীরের শক্তিটুকওু নিঃশেষ হয়ে আসছে।

সংসারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিটি যদি পড়ে থাকে কর্মহীনভাবে, পরিবারের অন্যদের অবস্থা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। চরম অসহায় অবস্থায় পড়েছে পরিবারটি।

আলাপকালে মো. নুরুজ্জামান জানান, তিনি একজন গরিব ভ্যানচালক। স্ত্রী, এক মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে তার সংসার। পরিবারের মধ্যে তিনিই এক মাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। ভ্যান চালিয়ে আয় রোজগার করে থাকেন। গত ৫ মাস আগে তার শরীর বিভিন্নস্থানে চুলকানি দেখা দেয়। স্থানীয় গ্রাম্য ডাক্তারের নিকট থেকে চুলকানির ওষুধ সেবন করেও ভালো হয়নি। দিনের পর দিন বাড়তে থাকে চুলকানির পরিমাণ। অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শে চামড়ার ওপরে ওষুদের প্রলেপসহ খাওয়ার ওষুধ গ্রহণ করেও কাজ হয়নি।

একপর্যায়ে তার সমস্ত শরীরেও চাকার মতো লাল দগদগে ঘা হয়ে যায়। বর্তমানে সেটি সারা শরীরে বিস্তার লাভ করেছে। এমনকি বাদ নেই পায়ের তলাও। নখগুলোও পচে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। রাত দিন যন্ত্রণায় ছটফট করতে হয়। অসহ্য চুলকানি ও ব্যথায় ঘুম আসে না দুচোখে।

নুরুজ্জামান বলেন, সংসারের অবস্থা খুবই খারাপ। এক বেলা খাওয়া হলে পরের বেলা আর খাওয়া হয় না। শিশু সন্তান দুটি না খেয়ে কঙ্কালসার হয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, স্থানীয় ডাক্তাররা তাকে ঢাকায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের নিকট যেতে বলেছে। তার জন্য লক্ষাধিক টাকা লাগবে। একটি ভ্যান ছাড়া তার সঞ্চয় বলতে আর কিছু নেই। এত টাকা জোগাড় করা তার পক্ষে অসম্ভব। এমতাবস্থায় তিনি চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবান, অর্থশালী, সমাজসেবক, জনপ্রতিনিধি ও মানবিক মানুষের নিকট আর্থিক সহায়তা কামনা করেছেন।

অবুঝ শিশু সন্তান দুটোর মুখের দিকে তাকিয়ে তার মোবাইল বিকাশ ০১৯১৩-৯৯৮৩২৪ (পারসোনাল) নম্বরে সহায়তা পাঠানোর আকুতি জানিয়েছেন।



সাতদিনের সেরা