kalerkantho

শুক্রবার। ৩১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ মে ২০২১। ০২ শাওয়াল ১৪৪২

'বাণ' সারানোর কথা বলে গৃহবধূকে পালাক্রমে ধর্ষণ!

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

১৬ এপ্রিল, ২০২১ ১৫:১৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'বাণ' সারানোর কথা বলে গৃহবধূকে পালাক্রমে ধর্ষণ!

গ্রেপ্তারকৃত মান্নান কবিরাজ এবং তার সহযোগী ফারুক বিশ্বাস

রাজবাড়ীর রামকান্তপুর ইউনিয়নে ঝাড়ফুকের কথা বলে দুই সন্তানের জননীকে (৩৮) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে ওই নারী বাদী হয়ে রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ মামলার আসামি কবিরাজসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের রায়নগর গ্রামের মৃত মোহন গাইনের ছেলে মান্নান গাইন ওরফে মান্নান কবিরাজ (৫২) এবং তার সহযোগী চর বাগমারা গ্রামের মৃত মুনছুর বিশ্বাসের ছেলে ফারুক বিশ্বাস (৩৫)।

ভুক্তভোগী নারী জানান, তিনি বেশ কিছু দিন শরীর হাত-পাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ব্যাথা জনিত রোগে ভুগছিলেন। তার মা তাকে সুস্থ করতে মান্নান কবিরাজের কাছ থেকে ওষুধ এনে দেন। এতে তিনি সুস্থ না হলে গত ১২ এপ্রিল মান্নান কবিরাজকে তাদের বাড়িতে ডেকে আনা হয়। মান্নান কবিরাজ এসে তাকে বলেন, 'বাণ মারা হয়েছে'। আর বান সারাতে ১১টি গাছের বাকল দিয়ে গরম পানি করে রাখতে। গত মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) সাড়ে ১০টার দিকে মান্নান কবিরাজ তার সহযোগী ফারুক বিশ্বাসকে নিয়ে ওই বাড়িতে আসে এবং তাকে বাড়ির অদূরে নির্জন তিন রাস্তার মোড়ে নিয়ে যায়। সেখানে তারা তাকে ও তার ছেলেকে হত্যার হুমকি নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে তারা বিষয়টি কাউকে বলতে নিষেধ করে তাকে বাড়ি পৌঁছে দেয়। পরবর্তীতে বিষয়টি তিনি তার পরিবারের লোকদের বিষয়টি অবহিত করেন।

রাজবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স্বপন কুমার মজুমদার বলেন, এ ঘটনায় ওই নারী বাদী হয়ে মান্নান কবিরাজ তার সহযোগী ফারুক বিশ্বাসকে আসামি করে রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের মাত্র চার ঘণ্টার মধ্যে আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা শুক্রবার বিকেলে রাজবাড়ীর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে। রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ওই নারীর ডাক্তারী পরীক্ষা করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা