kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

পাচারকালে ২৮০ বস্তা জব্দ

নিরাপত্তা প্রহরীকে নিয়ে চাল 'চুরি' করেন সরকারি কর্মকর্তা!

ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

১৪ এপ্রিল, ২০২১ ১৭:৪৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নিরাপত্তা প্রহরীকে নিয়ে চাল 'চুরি' করেন সরকারি কর্মকর্তা!

জব্দকৃত ১৪ মেট্রিক টন সরকারি চাল

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে সরকারি খাদ্য গুদাম থেকে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে অবৈধভাবে পাচারকালে ১৪ মেট্রিক টন চালসহ একটি ট্রাক জব্দ করেছে স্থানীয় প্রশাসন। এ ঘটনায় উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মুক্তা রানী সাহা বাদী হয়ে ভূঞাপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পরে পুলিশ খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. বেলাল হোসেন ও নিরাপত্তা প্রহরী মো. আল আমিনকে আটক করেছে।

জানা যায়, ভূঞাপুর সরকারি খাদ্য গুদাম থেকে পুরাতন চাল দিয়ে মজুত ঠিক রেখে দুই ট্রাক নতুন চাল পাচার হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার খাদ্য গুদামে অভিযান চালায়। তার আসার আগেই ৫০ কেজির ৩৬০ বস্তায় ১৮ মেট্রিক টন চাল নিয়ে একটি ট্রাক পালিয়ে যায়। ১৪ মেট্রিক টন (২৮০ বস্তা) চালসহ অপর ট্রাকটি গুদামের গেটের ভেতর জব্দ করেন তিনি।

খাদ্য গুদামের নিরাপত্তা প্রহরী মো. আল আমিন সাংবাদিকদের জানান, খাদ্য গুদাম কেন্দ্রিক একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট রয়েছে। খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির ৩২ মেট্রিক টন পুরাতন চাল অবৈধভাবে ডিলারদের কাছ থেকে কিনে খাদ্য গুদামে মওজুত রাখা হয়। পুরাতন চাল দিয়ে মওজুত ঠিক রেখে সদ্য খুলনা থেকে আসা নতুন চাল থেকে দুটি ট্রাকে ৩২ মেট্রিক টন চাল ভরা হয়। ১৮ মেট্রিক টন চাল নিয়ে একটি ট্রাক চলে যায়। জব্দকৃত ট্রাকটিতে ১৪ মেট্রিক টন চাল রয়েছে। আর এসব খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নির্দেশে হয়েছে।

ভূঞাপুর খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. বেলাল হোসেন জানান, ট্রাকের ১৪ মেট্রিক টন চাল খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির। আর এ চাল গাবসারা ইউনিয়নের ডিলার নজরুল, ফরহাদ ও দিলীপের চাল। তবে তিনি কোনো ডিও দেখাতে পারেননি। ১৮ মেট্রিক টন চাল নিয়ে পালিয়ে যাওয়া ট্রাকের ব্যাপারে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি।

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মুক্তা রানী সাহা বলেন, খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও নিরাপত্তা প্রহরীর বিরুদ্ধে সরকারি চাল আত্মসাতের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বিভাগীয় ব্যবস্থা হিসেবে দুজনকেই সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. ইসরাত জাহান বলেন, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। পুলিশ জব্দকৃত চালের তালিকা করে তাদের জিম্মায় নিয়েছে।

ভূঞাপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুল ওহাব বলেন, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের অভিযোগ অনুযায়ী মামলাটি দুদুকের সিডিউল ভূক্ত। সে কারণে ব্যবস্থাগ্রহণের জন্য বুধবার দুপুরে আটককৃত দুজনকে টাঙ্গাইল দুদকের নিকট ন্যস্ত করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা