kalerkantho

বুধবার । ২৮ বৈশাখ ১৪২৮। ১১ মে ২০২১। ২৮ রমজান ১৪৪২

দৈনিক কালের কণ্ঠে সংবাদ প্রকাশ

মুচির কাজ করা শিশু রোকনের পরিবারের পাশে ইউএনও

শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি   

১৪ এপ্রিল, ২০২১ ১৬:০৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মুচির কাজ করা শিশু রোকনের পরিবারের পাশে ইউএনও

দৈনিক কালের কণ্ঠে সংবাদ প্রকাশের পর শেরপুরের শ্রীবরদীতে মুচির কাজ করে সংসারের হাল ধরা সংখ্যালঘু পরিবারের শিশু রোকন রবিদাস (১০) ও তার পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিলুফা আক্তার। উপজেলার ভেলুয়া ইউনিয়নের ঝগড়ারচর বাজারে ফুটপাতে বসে মুচির কাজ করা ওই শিশু রোকনের হাতে স্কুলব্যাগ ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রীসহ শিক্ষা সামগ্রী তুলে দেন ইউএও। এ সময় তিনি তার পরিবারের হাতে দেন নগদ ৫ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা। বুধবার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এ সহায়তা দেওয়া হয়। 

এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিলুফা আক্তার কালের কণ্ঠকে বলেন, এই খবরের মাধ্যমে জানতে পারলাম শিশু রোকনের বাবা অসুস্থ। তার মা আর ভাই-বোনের খাবার জোগাড় করতে মুচির কাজ করে। এ দূরাবস্থা জেনে নিজে থেকেই সহায়তার উদ্যোগ নিয়েছি। তিনি ওই শিশুকে পড়ালেখার পরামর্শ দিয়ে বলেন, এই সংকটময় সময় পার করে তারা যাতে নতুন করে স্বপ্ন দেখে। যেন ভালোভাবে পড়ালেখা করতে পারে, এ জন্য ওই শিশুর খোঁজ খবর নেবেন বলেও তিনি জানান। এছাড়াও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থার আশ্বাস দিয়ে ইউএনও নিলুফা আক্তার বলেন, এসব ব্যাপারে সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসা দরকার।  

এ সময় শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রীসহ আর্থিক সহায়তা পেয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন রোকনের পরিবার। রোকনের বাবা সাদুয়া রবিদাস বলেন, ইউএনও স্যার ভালা মানুষ। আমার পোলাডারে পড়ালেহার সহায়তা করছে। আমগোরেও সহায়তা দিছে। দোয়া করি ইউএও স্যার যেন আরো বড় অফিসার অয়।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ মার্চ দৈনিক কালের কণ্ঠ পত্রিকায় 'জুতার কালিতে ঢাকা পড়ছে রোকনের স্বপ্ন' শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশ হয়। এ সংবাদটি ভাইরাল হয় ফেইসবুকেও। তা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিলুফা আক্তারের নজরে আসে। ইউএও'র এমন উদ্যোগের প্রশংসা করে মানবিকতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন বলে মন্তব্য স্থানীয় সচেতন মানুষদের।



সাতদিনের সেরা