kalerkantho

বুধবার । ২৮ বৈশাখ ১৪২৮। ১১ মে ২০২১। ২৮ রমজান ১৪৪২

নৃসংশতা! শিশু দত্তক না পেয়ে সিয়ামকে হত্যা করেন নানি

শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি   

১৩ এপ্রিল, ২০২১ ২১:২২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নৃসংশতা! শিশু দত্তক না পেয়ে সিয়ামকে হত্যা করেন নানি

আঞ্জুয়ারা ওরফে মধুমালতী

বগুড়ার শাজাহানপুরে সিয়াম হোসেন (৮) নামে এক শিশুর গলা কাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় আঞ্জুয়ারা ওরফে মধুমালতী (৫০) নামে এক নারীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ সময় হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ধারালো রক্তমাখা বটি উদ্ধার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃত আঞ্জুয়ারা ওরফে মধুমালতী উপজেলার আমরুল ইউনিয়নের পলিপালাশ গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের স্ত্রী এবং নিহত সিয়ামের নানি (নানার বোন)।

আরো পড়ুন

ধানক্ষেতে পাওয়া গেল সিয়ামকে, তবে দুই টুকরো

বগুড়া জেলা পুলিশ জানায়, আজ মঙ্গলবার দুপুরে শাজাহানপুর উপজেলার গোহাইল ইউনিয়নের পানিহালী গ্রামের ধানক্ষেত থেকে সিয়াম নামে এক শিশুর গলা কাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। সিয়াম নন্দীগ্রাম উপজেলার ভাটগ্রাম ইউনিয়নের তেতুলগাড়ী গ্রামের মৃত নজরুল ইসলামের ছেলে। মরদেহ উদ্ধারের দুই ঘণ্টার ব্যবধানে হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন এবং হত্যাকারী মালতী বেগমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। 

গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদে মালতী বেগম জানায়, শিশু সিয়ামের মামা আব্দুল মমিনের জমজ সন্তানকে দত্তক চেয়েছিলেন মালতী বেগম। কিন্তু সিয়ামের মা সাবিনা বেওয়ার কথামত মামা আব্দুল মমিন দত্তক দিতে অস্বীকার করেন। এনিয়ে সিয়ামের মায়ের সঙ্গে মালতী বেগমের কথা কাটাকাটি হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সাবিনার শিশুপুত্র সিয়ামকে হত্যা করার পরিকল্পনা করে মালতী বেগম। একপর্যায়ে মঙ্গলবার সকালে মালতী বেগম বেড়াতে এসে চকলেট ও চানাচুর কিনে দেওয়ার লোভ দেখিয়ে কৌশলে শিশু সিয়ামকে বাড়ি থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে ধানক্ষেতে নিয়ে যায়। সেখানে ধারালো বটি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে পালিয়ে যায় মালতী বেগম।

শাজাহানপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, হত্যাকাণ্ডের মূলহোতা মালতী বেগমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। একই সঙ্গে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ধারালো রক্তমাখা বটি উদ্ধার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে মালতী বেগম।



সাতদিনের সেরা