kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

হায় স্বাস্থ্যবিধি!

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি   

১১ এপ্রিল, ২০২১ ১৫:৫৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হায় স্বাস্থ্যবিধি!

বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলায় হাট-বাজারে বেশির ভাগ ক্রেতা-বিক্রেতা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। তাঁদের মুখে মাস্ক নেই। সামাজিক দূরত্বও উধাও। যেন করোনার সংক্রমণের কথা ভুলেই গেছেন সবাই। এ পরিস্থিতিতে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি বেড়েই চলছে।

রবিবার নন্দীগ্রাম উপজেলার কুন্দারহাটে গিয়ে দেখা যায়, ক্রেতা-বিক্রেতাদের প্রচণ্ড ভিড়। সামাজিক দূরত্বের বালাই নেই। অনেকেরই মুখে মাস্ক নেই। হাতে গোনা দু-একজনের মাস্ক থাকলেও কথা বলার সুবিধার্থে মুখ থেকে তা নামিয়ে রেখেছেন গলায়। হাট কমিটির পক্ষ থেকে সচেতনতামূলক তেমন কোনো প্রচারণা চোখে পড়েনি। মাস্ক না পরার বিষয়ে জানতে চাইলে কয়েকজন তড়িঘড়ি করে পকেট থেকে মাস্ক বের করেন। দেখে যে কেউ ভাবতে পারে, এখানে করোনাভাইরাসের কোনো বালাই নেই। 

হাটে-বাজার করতে এসেছিলেন মালঞ্চা গ্রামের জামিল হোসেন। তাঁর মুখে মাস্ক নেই। এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, 'পকেটে মাস্ক আছে। আল্লাহর রহমতে আমাদের কিছুই হবে না।'

হাটে আসা ফেরদৌস আলম বলেন, সাপ্তাহিক হাট না করলে পরিবার নিয়ে খামু কি? হামাকেরে আর তো এক মাসের বাজার করার টেকা নাই।

আলু বিক্রি করতে আসা লেবু মিয়া নামে এক ব্যবসায়ী বলেন, হাটে আসা ও লোক সমাগমে যাওয়া নিষেধ জানি। কিন্তু কি করব। টাকার প্রয়োজন, হাটে এসেছি। তাই শত বিপদের মাঝেও হাটে আসতে হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোসা. শারমিন আখতার বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে খোলা মাঠে হাট চালু রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যদি ব্যতিক্রম ঘটে, তবে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



সাতদিনের সেরা