kalerkantho

শুক্রবার । ১০ বৈশাখ ১৪২৮। ২৩ এপ্রিল ২০২১। ১০ রমজান ১৪৪২

কালিয়াকৈরে স্কুলছাত্রীকে অপহরণ

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

৮ এপ্রিল, ২০২১ ২১:০৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কালিয়াকৈরে স্কুলছাত্রীকে অপহরণ

গাজীপুরের কালিয়াকৈর পৌরসভার ওয়ার্ড কাউন্সিলরসহ তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে স্কুলছাত্রী অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অপহৃতের বড় বোন বাদী হয়ে কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। 

অপহৃত স্কুলছাত্রী সিরাজগঞ্জের বেলকুচি থানার সগুনা এলাকার শাহ আলম সরকারের মেয়ে সোনালী খাতুন (১২)। সে তার গ্রামর বাড়ির এলাকার স্কুলে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। 

অপহৃতের পরিবার ও থানায় দায়ের করা অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, অপহৃত স্কুলছাত্রীর বড় বোন সুলতানা খাতুন ও তার স্বামী জাহিদ হাসান কালিয়াকৈরের কালামপুর এলাকায় সুলতান মাস্টারের বাড়িতে ভাড়া থেকে বসবাস করে আসছিলেন। গত ১ মাস আগে সোনালী তার বোন সুলতানা খাতুনের বাসায় বেড়াতে আসে। বেড়াতে আসার পর থেকে কালামপুর এলাকার শাকিল নামের এক যুবক ওই স্কুলছাত্রীকে রাস্তা-ঘাটে বিভিন্ন সময় উত্যক্ত করে আসছিল। বিষয়টি সে তার বড় বোন সুলতানাকে জানালে তিনি এলাকার গণ্যমান্য লোকজনদের জানায়। এতে শাকিল ক্ষিপ্ত হয়। পরে পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবুল কাশেম ও তার সহযোগী হাফিজুর রহমান, শ্রীবাসের মাধ্যমে ওই স্কুলছাত্রী ও তার পরিবারের সদস্যদের বিভিন্ন ধরনের হুমকি দেয়। গত বুধবার সন্ধ্যা ৬টা দিকে ওই স্কুলছাত্রী সোনালী তার বোনের বাসার পাশে হাঁটা-হাঁটি করছিল। এসময় শাকিল, কাউন্সিলর আবুল কাশেম, হাফিজুর, শ্রীবাসসহ অজ্ঞাত-নামা আরো ২-৩ জন লোক তার মুখ চেপে ধরে জোর করে একটি সিএনজিতে তুলে তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। 

এ ঘটনায় অপহৃতের বড় বোন সুলতানা খাতুন বাদী হয়ে ওই দিন রাতেই শাকিল, কাউন্সিলর আবুল কাশেম, হাফিজুর, শ্রীবাসসহ অজ্ঞাতনামা আরো ২-৩ জনের নামে কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। তবে অভিযুক্ত কাউন্সিলর আবুল কাশেম অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। আমার প্রতিপক্ষ আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। 

কালিয়াকৈর থানার এসআই আমিনুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অপহৃত স্কুলছাত্রীকে উদ্ধারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।  

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা