kalerkantho

শুক্রবার । ১০ বৈশাখ ১৪২৮। ২৩ এপ্রিল ২০২১। ১০ রমজান ১৪৪২

পালিয়ে রক্ষা পেল এক কিশোরী

শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি   

৮ এপ্রিল, ২০২১ ১৯:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পালিয়ে রক্ষা পেল এক কিশোরী

পাচারকারীদের হাত থেকে পালিয়ে রক্ষা পেল এক অসহায় কিশোরী। এ ঘটনায় আজ বৃহস্পতিবার রঞ্জু মিয়া (২২) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ। ভুক্তভোগী ওই কিশোরী শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার কাকিলাকুড়া চৌরাস্তা বাজারের চা বিক্রেতা মৃত মন্ডল মিয়ার মেয়ে। ঘটনাটি এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে। 

ভুক্তভোগীর মা আতিয়ারা বেগম জানান, গত ২৭ মার্চ রাতে তার মেয়েকে চাকরি দেওয়ার নাম করে বাসা থেকে মুদি দোকান মালিক মুছা মিয়ার ছেলে স্বাধীন (২৫) ও কামারদহ গ্রামের সামছুল হকের ছেলে মোরাদুজ্জামান ফুডা (৪৫) নিয়ে যান। এরপর আর তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। ঘটনার ৬ দিন পর তার মেয়ে বাড়ি ফিরে আসে। 

ওই কিশোরী জানায়, স্বাধীন ও ফুডা তাকে চাকরি দেওয়ার কথা বলে বাসা থেকে নিয়ে যান। পরে ময়মনসিংহ শহরের এক বাসায় তাকে রাখা হয়। সেখানে ৬ দিন পর ওই বাসার মালিক ওদের গতিবিধি দেখে পাচারকারী সন্দেহে বিক্রি করার পাঁয়তারা করছে বলে কিশোরীকে জানান। পরে ওই কিশোরী বাসা থেকে পালিয়ে বাড়িতে এলে ঘটনাটি জানাজানি হয়। এ নিয়ে গ্রাম্য সালিশের আয়োজন হলে এলাকায় ছড়ি পড়ে ঘটনাটি। পুলিশ এই ঘটনার খবর পেয়ে  কিশোরীকে তার বাড়ি থেকে ডেকে থানায় নিয়ে আসে। এ সময় পুলিশ অভিযান চালিয়ে ওই চক্রের সঙ্গে জড়িত অভিযোগে রঞ্জু মিয়াকে গ্রেপ্তার করে। কিন্তু ওই চক্রের মূল হোতা স্বাধীন ও ফুডা পলাতক। 

ভুক্তভোগীর মা আতিয়ারা বেগম বলেন, 'আমরা গরিব মানুষ। চা বিক্রি করে কোনোমতে সংসার চালাই। ওদের বিরুদ্ধে কথা বলার মতো সাহস আমগোর নাই'। 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে শ্রীবরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোখলেছুর রহমান বলেন, এ ব্যাপারে মানবপাচার আইনে থানায় তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আটক একজনকে কোর্টে সোপর্দ করা হয়েছে। পলাতকদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা