kalerkantho

মঙ্গলবার । ৭ বৈশাখ ১৪২৮। ২০ এপ্রিল ২০২১। ৭ রমজান ১৪৪২

অজ্ঞান পার্টির দেওয়া কোমল পানীয় খেয়ে অচেতন ৪ শ্রমিক, একজনের মৃত্যু

আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি    

৮ এপ্রিল, ২০২১ ১৪:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অজ্ঞান পার্টির দেওয়া কোমল পানীয় খেয়ে অচেতন ৪ শ্রমিক, একজনের মৃত্যু

অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে বগুড়ার আদমদীঘিতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অজ্ঞাতনামা (৪১) এক শ্রমিক মারা গেছেন এবং আরো তিন শ্রমিককে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় অজ্ঞাত ওই ব্যক্তি মারা যান।

জানা গেছে, টাঙ্গাইল থেকে ট্রাকযোগে কুড়িগ্রামের নিজ বাড়িতে ফেরার পথে চার শ্রমিক অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব হারান। গতকাল বুধবার সকালে তাদের অচেতন অবস্থায় বগুড়া-নওগাঁ মহাসড়কের আদমদীঘির ঢাকা রোড নামক স্থান থেকে পুলিশ উদ্ধার করে আদমদীঘি হাসপাতালে ভর্তি করান। এদের মধ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যায় অজ্ঞাতনামা এক শ্রমিক মারা যান। অপর তিনজন বর্তমানে সুস্থ রয়েছেন। তারা হলেন- নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার নিজসুন্দরপাকা গ্রামের মমিনুল ইসলামের ছেলে তবিবুর (১৮), কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার আরজি নিউওয়াশি ফরেউদ্দিনের ছেলে নুর হোসেন (৩৫) ও একই জায়গার দাবিছড়া গ্রামের মতিয়ার রহমান (৪৬)।

আদমদীঘি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অসুস্থ তবিবুর রহমান জানান, মঙ্গলবার রাতে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর এলাকায় একটি সিমেন্টবোঝাই ট্রাকে অচেনা এক ব্যক্তিসহ আমরা চার শ্রমিক বাড়ির উদ্দেশে রওনা দিই। পথিমধ্যে তারা সিরাজগঞ্জের পাপিয়া হোটেলে রাতের খাবার খাওয়ার পর অচেনা ওই ব্যক্তি ৪ শ্রমিককে কোমল পানীয় (সেভেন আপ) খাওয়ান। এরপর তারা ট্রাকে ওঠার পরপরই অচেতন হয়ে পড়েন। তাদের কাছে থাকা মোট চারটি মোবাইল ফোন ও ১০ হাজার টাকা খোয়া যায়। পরদিন সকালে আদমদীঘির ঢাকা রোড নামক স্থানে সড়কের পাশে তাদের ফেলে রেখে ট্রাকটি চলে যায়। চার শ্রমিককে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দিলে তাদের উদ্ধার করে আদমদীঘি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যায় চারজনের মধ্যে অজ্ঞাতনামা এক শ্রমিক মারা যান। তার বাড়ি গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলায় বলে জানা গেছে।

আদমদীঘি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালাল উদ্দীন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা