kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবি

রক্ত দিয়ে আর মানুষ বাঁচাবে না সোহাগ!

অনলাইন ডেস্ক   

৬ এপ্রিল, ২০২১ ১০:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রক্ত দিয়ে আর মানুষ বাঁচাবে না সোহাগ!

নারায়ণগঞ্জের মদনগঞ্জ ঘাট এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীতে কোস্টার ট্যাংকারের ধাক্কায় যাত্রীবাহী লঞ্চ ডুবে যাওয়ার ঘটনায় আরো একটি লাশ পাওয়া গেছে। লাশটি রাজধানীর মিরপুরের কালশির সাইফ হাওলাদার সোহাগের বলে শনাক্ত করা হয়েছে। দূর্ঘটনার দিন ওই লঞ্চেই ছিলেন সোহাগ। নিউ মডেল ইউনিভার্সিটির অনার্স শেষ বর্ষের ছাত্র ছিলেন তিনি।

মঙ্গলবার (০৬ এপ্রিল) সকালে সোহাগের লাশটি দেখতে পায় স্থানীয়রা। এর পরই পুলিশকে খবর দেয় তারা। পুলিশের কাছ থেকে সোহাগের লাশ বুঝে নিয়ে ঢাকায় রওনা দিয়েছেন সোহাগের বড় ভাই শুভ। এর আগে দূর্ঘটনার খবর পেয়ে ঢাকা থেকে ছুটে যায় সোহাগের বন্ধুরাও। সোমবার সারাদিন খুঁজেও সোহাগের সন্ধান পাননি তারা। অবশেষে সোহাগ পাওয়া গেল ঠিকই, তবে তিনি এখন লাশ।

সোহাগ ছিলেন খুবই নম্র, ভদ্র ও পরোপকারী একজন মানুষ। নিয়মিত রক্ত দিতেন তিনি। ঢাকা ব্লাড ব্যাংক এবং মুন্সিগঞ্জ যুব রক্ত সংঘ নামের একটি সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন তিনি। অনেক মুমূর্ষু রোগীকে রক্ত নিজে রক্ত দিয়ে ও রক্তের ব্যবস্থা করে দিয়ে জীবন বাঁচাতে ভূমিকা রেখেছেন। পড়াশোনার পাশাপাশি তিনি মুন্সিগঞ্জে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতেন। চাকরির কাজে নারায়ণগঞ্জ এসেছিল তিনি। নারায়ণগঞ্জ থেকে ফেরার পথে দুর্ঘটনার শিকার হন সোহাগ। 

ছেলের মৃত্যুর সংবাদ শুনে বাকরুদ্ধ তার পরিবার। সর্বশেষ পরশু (রবিবার) সোহাগ তার মায়ের সাথে ফোনে কথা বলেছিলেন। সোহাগ মাকে বলেছিলেন, 'নারায়ণগঞ্জ থেকে মুন্সিগঞ্জ যাচ্ছেন'- মায়ের সাথে সোহাগের এটাই সর্বশেষ কথা।সোহাগের বন্ধু মারুফ আহমেদ আক্ষেপ করে বলেন, "আমরা খুবই ভালো একটা বন্ধুকে হারালাম। আমাদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। সোহাগ আর রক্ত দিয়ে মানুষের জীবন বাঁচাবে না- সেটা মেনে নিতে পারছি না।"



সাতদিনের সেরা