kalerkantho

শুক্রবার । ১১ আষাঢ় ১৪২৮। ২৫ জুন ২০২১। ১৩ জিলকদ ১৪৪২

যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

মাদারীপুর প্রতিনিধি   

৩ এপ্রিল, ২০২১ ১৭:২৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

মাদারীপুর সদর উপজেলার ঝাউদি ইউনিয়নের টুবিয়া গ্রামের শ্বশুরবাড়ি থেকে গৃহবধূ আখি আক্তারের (২০) লাশ শুক্রবার সন্ধ্যায় উদ্ধার করেছে পরিবারের লোকজন। এ ঘটনায় রাতে গৃহবধূর স্বামী আরিফ বেপারীকে আটক করেছে সদর থানা পুলিশ।

নিহতের পরিবারের দাবি, যৌতুকের টাকা না দেওয়ায় আখিকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রেখেছে তার স্বামী আরিফ বেপারী। 

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, প্রায় তিন বছর আগে মাদারীপুর সদর উপজেলার টুবিয়া গ্রামের কালাই ফকিরের মেয়ে আঁখি আক্তারের সঙ্গে একই গ্রামের মৃত হায়দার বেপারীর ছেলে আরিফ বেপারীর বিয়ে হয়। বর্তমানে তাদের সংসারের পাঁচ মাসের ছেলে সন্তান আছে। বিয়ের সময় নগদ ৫০ হাজার টাকাসহ প্রয়োজনীয় আসবাবপত্রও দেয় আখির পরিবার। এরপরও প্রায় সময় যৌতুকের জন্য আখির ওপর মানসিক ও শারিরিক নির্যাতন করেন আরিফ। সম্প্রতি নির্যাতনের পরিমাণ বাড়িতে দেন তিনি। বিষয়টি এলাকার মুরব্বি ও তার বাবার বাড়ির সবাইকে জানালে আরিফ ক্ষিপ্ত হন।

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় নিজ ঘরে আখির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পরিবারের লোকজন। এ ঘটনায় রাতে নিহতের পরিবার থেকে মামলা করা হয়েছে। পরে অভিযুক্ত আরিফ বেপারীকে আটক করেছে মাদারীপুর সদর থানা পুলিশ।

নিহত আখির ভাই রাসেল ফকির জানান, আমার মামাতো ভাই আরিফের সাথে আখির বিয়ে হয়। আগে আরিফ বিদেশে থাকতো। এরপর দেশে এসে রাজমিস্ত্রির কাজ শুরু করে। প্রায় সময় নানা অজুহাতে আখিকে যৌতুকের টাকার দাবিতে আখিকে নির্যাতন করত। বিষয়টি সবাইকে জানালে আরিফ ক্ষিপ্ত হয়ে আমার বোনকে শ্বাসরোধে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রেখে আমাদের খবর দেয়। 

মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মো. আব্দুল হান্নান জানান, ঘটনাস্থল থেকে অভিযুক্ত আরিফ বেপারীকে আটক করা হয়েছে। নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মাদারীপুর মর্গে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



সাতদিনের সেরা