kalerkantho

বুধবার । ২ আষাঢ় ১৪২৮। ১৬ জুন ২০২১। ৪ জিলকদ ১৪৪২

পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যা: বুড়িমারীতে ইউপি সদস্যসহ গ্রেপ্তার ৪৮

পাটগ্রাম (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি   

৩ এপ্রিল, ২০২১ ০০:২২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যা: বুড়িমারীতে ইউপি সদস্যসহ গ্রেপ্তার ৪৮

আবু ইউনুছ মো. সহিদুন্নবী জুয়েল

লালমনিরহাটের বুড়িমারীতে গত বছরের ২৯ অক্টোবর কোরআন অবমাননার গুজবে আবু ইউনুছ মো. সহিদুন্নবী জুয়েলকে (৫০) পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আরো নতুন এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছেন পাটগ্রাম থানা পুলিশ ও লালমনিরহাট জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।  

ওই ঘটনার পর থেকে ১৮ দফায় ৪৮ জনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে নেয় পুলিশ। 

শুক্রবার (২ এপ্রিল) আরো এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার দেখানোর পর বিকেলের দিকে লালমনিরহাট আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ। গ্রেপ্তার করা ওই ব্যক্তি হাফিজুল ইসলাম বুড়িমারী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য ও ওই ইউনিয়নের বাসিন্দা। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে বুড়িমারী বাজার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ডিবি পুলিশ জানায়, আবু ইউনুছ মো. সহিদুন্নবী জুয়েল হত্যায় দায়ের করা হত্যা, পুলিশের ওপর হামলা ও বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে হামলার মামলায় এজাহার নামীয় আসামি ইউপি সদস্য হাফিজুল ইসলাম দীর্ঘ দিন পলাতক থেকে শুধুমাত্র হত্যা মামলায় হাইকোর্টে চার সপ্তাহের জামিনে রয়েছেন। ফলে পুলিশের ওপর হামলার মামলায় ১৪ নম্বর আসামি হিসেবে হাফিজুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। 

গত বছরের ২৯ অক্টোবর সন্ধ্যায় বুড়িমারী মসজিদে পবিত্র কোরআন অবমাননার অভিযোগ তুলে রংপুরের শালবন এলাকার আবু ইউনুছ মো. সহীদুন্নবী জুয়েলকে পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় গত বছরের ৩১ অক্টোবর নিহতের চাচাতো ভাই সাইফুল আলম, পাটগ্রাম থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শাহজাহান আলী ও বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সাইদ নেওয়াজ নিশাত বাদি হয়ে পৃথক-পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করেন।

তিন মামলায় ১১৪ জন নামীয় আসামিসহ অজ্ঞাত শত শত ব্যক্তিদের আসামি করা হয়। আলোচিত তিনটি মামলার তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয় লালমনিরহাট জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশকে। 

ঘটনাস্থলের ভিডিও ফুটেজ ও তদন্ত করে আসামি শনাক্ত করে অভিযান চালিয়ে ওই তিন মামলার ৪৮ ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আদালতে আত্মসমর্পণ করেন ৫ জন। এর মধ্যে ১৭ ব্যক্তিকে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে নেয় পুলিশ। তাছাড়াও ওই তিন মামলায় গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে ১৮ ব্যক্তি জামিনে রয়েছেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা  লালমনিরহাট জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক এ সব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।



সাতদিনের সেরা