kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

চাঁদপুরে মোবারক হত্যা মামলার প্রধান দুই আসামি গ্রেপ্তার

চাঁদপুর প্রতিনিধি   

২২ মার্চ, ২০২১ ২৩:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চাঁদপুরে মোবারক হত্যা মামলার প্রধান দুই আসামি গ্রেপ্তার

চাঁদপুরের হাইমচরে মোবারক হোসেন গাজী নামে এক যুবককে হত্যায় জড়িত দুই ভাইকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এই নিয়ে সোমবার রাতে গণমাধ্যমকে বিস্তারিত জানাতে সাংবাদিকদের ব্রিফিং করা হয়। সোমবার এর আগে এদিন সকালে জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলা থেকে এই দুই ভাইকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। 

পুলিশ জানিয়েছে, হত্যা মামলার আসামিরা সীমান্ত পাড়ি দিয়ে ভারতে যাওয়ার চেষ্টা করছিল। সাংবাদিকদের কাছে এমন তথ্য জানান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোহেল মাহমুদ। 

তিনি জানান, গত শুক্রবার রাতে মোবারক হোসেন গাজীকে হত্যার পর এই দুই ভাই, চাঁদপুর থেকে বিভিন্ন জেলা পেরিয়ে জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে অবস্থান করে। তাদের লক্ষ্য ছিল, দিনাজপুরের হিলি বন্দর দিয়ে সীমান্ত পাড়ি দেওয়া। কিন্তু পুলিশের জালে ধরা পড়তে হয় তাদের। 

সোহেল মাহমুদ আরো জানান, মোবারক গাজী হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক আব্দুল মান্নান, তথ্য প্রযুক্তি এবং গোয়েন্দা পুলিশের সহযোগিতা নিয়ে খুব সহজেই এই দুই ভাইকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হন।

তবে কি কারণে মোহন ও রাজনসহ তাদের অন্য সহযোগীরা মোবারক গাজীকে হত্যা করেছে তা সাংবাদিকদের প্রকাশ করেননি জেলা পুলিশের এই কর্মকতা। এই সম্পর্কে আদালতে হাজির করে আসামিদের রিমান্ডে নেওয়ার পর বিস্তারিত জানানো হবে বলে জানান তিনি। 

এদিকে, এর আগে মোবারক হোসেন গাজী হত্যায় জড়িত থাকায় সোলাইমান নামে আরেকজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এছাড়া এই মামলায় অভিযুক্ত অপর আসামি আলমগীর এখনো পলাতক রয়েছে। 

গত শুক্রবার রাতে জেলার হাইমচর উপজেলার বাংলাবাজার এলাকায় পূর্ব বিরোধের জের ধরে মোহন, রাজন, আলমগীর এবং সোলাইমান নামে এই দুই জোড়া ভাই অর্থাৎ চারজন মিলে তাদের প্রতিপক্ষ মইন ভূঁইয়া এবং মহিন খানের ওপর চাকু নিয়ে হামলা করে। এদের এই দুজন প্রাণে বেঁচে গেলেও অসুস্থ বাবার জন্য ওষুধ কিনতে যাবার পথে এই চক্রের কবলে পড়ে ঘটনাস্থলে ছুরিকাঘাতে নিহত হন মোবারক হোসেন গাজী (২০)। তিনি রাজধানী ঢাকায় একটি জুতার দোকানের কর্মচারী ছিলেন। 

এই ঘটনায় নিহত মোবারক হোসেন গাজীর বাবা গনি গাজী বাদী হয়ে চারজনকে অভিযুক্ত করে হাইমচর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। 



সাতদিনের সেরা