kalerkantho

শুক্রবার । ১১ আষাঢ় ১৪২৮। ২৫ জুন ২০২১। ১৩ জিলকদ ১৪৪২

শিক্ষককে মারধরের প্রতিবাদে করা মানববন্ধনে ফের হামলা

মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

১৮ মার্চ, ২০২১ ১৭:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শিক্ষককে মারধরের প্রতিবাদে করা মানববন্ধনে ফের হামলা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার লাউর ফতেহপুর আর এন টি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আল-আমিন খানকে মারধরের প্রতিবাদে স্থানীয়রা মানববন্ধনের আয়োজন করেন। বৃহস্পতিবার কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার গাজীরহাট সেতুর ওপর আয়োজিত ওই মানববন্ধনের শেষের দিকে অভিযুক্ত ভাইস চেয়ারম্যানের লোকজন অতর্কিত হামলা চালিয়ে মানববন্ধন পণ্ড করে দেয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, প্রধান শিক্ষক আল আমিন মুরাদনগর উপজেলার জারেরা (জাড্ডা) গ্রামের মৃত ওয়াহিদ খানের ছেলে। তিনি যেমন ওই বিদ্যালয়ে সুনামের সাথে চাকরি করছিলেন, তেমনি নিজ গ্রামেও বিভিন্ন সামাজিক ও উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে তার সরব উপস্থিতি। তার ওপর এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনায় এলাকার সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ মারাত্মকভাবে মর্মাহত। বক্তারা অভিযুক্ত ভাইস চেয়ারম্যানকে আইনের আওতায় এনে তাকে পদ থেকে অপসারণের দাবি জানায়। অন্যথায় কঠিন আন্দোলনসহ নবীনগর-মুরাদনগর-কুমিল্লা-চট্টগ্রাম সড়ক অচল করে দেওয়ার হুঁশিয়ারি দেয় বক্তারা।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান, ঢাকাস্থ বাঙ্গরা বাজার থানা ছাত্র কল্যাণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রুবেল সরকার, বাঙ্গরা বাজার থানা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজহারুল ইসলাম, আরিফ খান।

শান্তিপূর্ণ মানববন্ধনের শেষের দিকে ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সাদেক সমর্থিত নবীনগর উপজেলার উত্তর বাঙ্গরা বাজার কমিটির সভাপতি রবিউল আউয়ালের নেতৃত্বে একদল যুবক অতর্কিত হামলা চালায়। হামলাকারীরা মানববন্ধনের ব্যানার ছিনিয়ে নিয়ে বক্তব্য রাখা লোকজনের ওপর কিল-ঘুষি মারে এবং সাংবাদিকদের ক্যামেরাও ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। আচমকা এ ঘটনায় মানববন্ধনে উপস্থিত হওয়া লোকজন আতঙ্কে দিক-বেদিক ছুটাছুটি করে পড়ে গিয়ে বেশ কয়েকজন আহত হয়।



সাতদিনের সেরা