kalerkantho

বুধবার । ১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ এপ্রিল ২০২১। ১ রমজান শাবান ১৪৪২

ব্যবসায়ীর হাত-পা বাঁধা, দেহে এলোপাতাড়ি কোপ

আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি    

১৭ মার্চ, ২০২১ ১৪:৫২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্যবসায়ীর হাত-পা বাঁধা, দেহে এলোপাতাড়ি কোপ

বগুড়ার আদমদীঘিতে রুবেল হোসেন (৩২) নামের এক ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাত ও কুপিয়ে হত্যা করে তার মোটরসাইকেল ছিনতাই করেছে দুবৃর্ত্তরা। আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১০টায় উপজেলার ছাতিয়ানগ্রাম ইউপির কোমাড়ভোগ গ্রামের কমিউনিটি ক্লিনিক মোড় এলাকা থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত রুবেল উপজেলার শালগ্রামের শামসুল ইসলামের ছেলে। তিনি তিলকপুরে ফিডের ব্যবসা করতেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, রুবেল হোসেন জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার তিলকপুর বাজারে বিভিন্ন ধরনের মাছের ও মুরগির খাদ্যের (ফিড) ব্যবসার পাশাপাশি আউটসোর্সিংয়ের কাজ করতেন। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে ব্যবসা সংক্রান্ত কাজে রুবেল হোসেন তিলকপুর থেকে আদমদীঘিতে আসেন। কাজ শেষে আবার ওই দিন রাতেই তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলযোগে তিলকপুর বাজারে ফিরছিলেন। এসময় রাত সাড়ে ১০টার দিকে তিনি উপজেলার কোমাড়ভোগ গ্রামের কমিউনিটি ক্লিনিকের সামনে পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা সড়কে রশি দিয়ে ব্যারিকেড দিয়ে মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে। এরপর ব্যবসায়ী রুবেল হোসেনকে এলোপাতাড়িভাবে হাত-পা ও চোখসহ বিভিন্নস্থানে ছুরিকাঘাতে হত্যা করে। তার গলা, হাত ও দুই পা রশি দিয়ে বাঁধা হয়। পরে তাকে সড়কের পাশের ধানক্ষেতে ফেলে রেখে তার মোটরসাইকেল এবং মোবাইল ফোন নিয়ে যায়। 

আজ সকালে স্থানীয়রা তার হেলমেট পরা লাশটি দেখে থানায় খবর দেন। খবর পেয়ে বগুড়া পুলিশ সুপার (এসপি) আলী আশরাফ ভূঞা, আদমদীঘি-দুপচাঁচিয়া সার্কেলের সিনিযর পুলিশ সুপার কেএইচএম এরশাদ খান, বগুড়া ডিবির ওসি আবদুর রাজ্জাক, ওসি জালাল উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তারা লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছেন।

আদমদীঘি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালাল উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, রুবেল হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন ও হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের জন্য জোড় তৎপরতা চালানো হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা