kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

ভুল চিকিৎসায় মৃত্যু! লাশ নিয়ে ক্লিনিক ঘেরাও-ভাঙচুর

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৬ মার্চ, ২০২১ ২০:৫৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভুল চিকিৎসায় মৃত্যু! লাশ নিয়ে ক্লিনিক ঘেরাও-ভাঙচুর

নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুর এলাকায় সেন্ট্রাল জেনারেল হাসপাতাল নামে একটি বেসরকারি ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় সোমবার রাত ১১টায় লাশ নিয়ে হাসপাতাল ঘেরাওসহ বিক্ষোভ এবং ভাঙচুর করেছে এলাকাবাসী ও স্বজনরা। 

পুলিশ বলেছে- এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ দিলে তারা আইনি ব্যবস্থা নেবে। তবে মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় মৃতের কোনো স্বজন অভিযোগ দেয়নি।

স্বজনরা জানায়, শহরের ডনচেম্বার এলাকার বাসিন্দা ফল ব্যবসায়ী জিসান আহমেদের স্ত্রী পান্না বেগমকে (২৮) সোমবার দুপুর ১২টায় খানপুর এলাকার সেন্ট্রাল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বিকেল ৩টার দিকে খানপুর ৩০০ শয্যা হাসপাতালের গাইনি চিকিৎসক মিশকাত জাহান হেনার তত্ত্বাবধানে অপারেশনের (সিজার) মাধ্যমে একটি কন্যাসন্তান জন্ম দেন তিনি। পরে পান্না বেগমের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে চিকিৎসক তার শরীরে একটি ইনজেকশন দেন। এতে তার অবস্থা আরো খারাপ হলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। তবে সেখানে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

এ খবর জানার পর স্বজনরা ও এলাকাবাসী লাশ নিয়ে এসে হাসপাতাল ঘেরাওসহ বিক্ষোভ ও কাচের আসবাবপত্র ভাঙচুর করেন। খবর পেয়ে সদর মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

মৃত পান্নার মা শান্তা বেগম জানান, সকালে সিজারের জন্য এ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে বিকেল ৪টায় সিজার হয় এবং মা মেয়ে দুজনই সুস্থ ছিল। কিছুক্ষণ পর নবজাতক মেয়েকে আদর করার সময় কাশি হয়। কাশি দেওয়ার পর নার্স ডাকা হলে তিনি এসে ইনজেকশন পুশ করেন। ইনজেকশনের পর বমি ও রক্ত বের হয়। পরেই পান্না মারা যায়। মারা যাওয়ার সঙ্গ সঙ্গেই চিকিৎসকরা তড়িঘড়ি করে ঢাকায় পাঠিয়ে দেয়।

হাসপাতালের পরিচালক মনিরুজ্জামান মনির দাবি করেছেন, প্রেসার বেড়ে যাওয়া নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি। পরে তাকে ঢাকা পাঠানো হলে তিনি পথে মারা যান।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার এসআই সিরাজুল ইসলাম জানান, রোগী মারা যাওয়ার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সবার সঙ্গে কথা বলেছি। রোগীর স্বজনরা অভিযোগ করলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মো. শাহজামান জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় মৃতের কোনো স্বজন অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ দিলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।



সাতদিনের সেরা