kalerkantho

রবিবার। ৫ বৈশাখ ১৪২৮। ১৮ এপ্রিল ২০২১। ৫ রমজান ১৪৪২

বিয়ের ৭ মাসের মাথায় লাশ হয়ে মর্গে গৃহবধূ

শ্বশুর ও দেবর গ্রেপ্তার

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, রংপুর   

১০ মার্চ, ২০২১ ১৯:১২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিয়ের ৭ মাসের মাথায় লাশ হয়ে মর্গে গৃহবধূ

শ্বশুর আব্দুর রাজ্জাক ও দেবর সোহেল রানা

রংপুরের মিঠাপুকুরে বিয়ের সাত মাসের মাথায় লাশ হয়েছেন রোকসানা বেগম নামে (১৯) এক গৃহবধূ। শ্বশুরবাড়ির লোকজন নিমর্মভাবে পিটিয়ে হত্যার পর ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রেখেছিল বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে রোকসানার মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে।

আজ বুধবার দুপুরে পুলিশ রোকসানার শ্বশুররবাড়ির শয়নকক্ষ থেকে ফাঁসিতে ঝুলন্ত অবস্থায় রোকসানার লাশ উদ্ধার করে। রোকসানা বেগম উপজেলার ইমাদপুর ইউনিয়নের রহমতপুর পাইলচড়া গ্রামের শাহিন মিয়ার স্ত্রী এবং ইমাদপুর মধ্যপাড়া গ্রামের আবদুর রহিমের মেয়ে। শাহিন ঢাকায় একটি গার্মেন্টে কাজ করেন।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে পুলিশ নিহতের শ্বশুর ও দেবরকে গ্রেপ্তার করেছে।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, প্রায় সাত মাস আগে রোকসানার সঙ্গে বিয়ে হয় শাহিন মিয়ার। শাহিন মিয়া স্ত্রীকে বাড়িতে রেখে ঢাকায় পোশাক কারখানায় কাজ করেন। স্বামীর অনুপস্থিতিতে রোকসানার সঙ্গে প্রায় সময় ঝগড়া লাগাতো শ্বশুর-শ্বাশুড়ির। এ নিয়ে সংসারে অশান্তি চলছিল তাদের। আজ বুধবার সকালে পারিবারিক অশান্তির জেরে তাকে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রেখেছিল বলে নিহতের বাবা দাবি করেছেন। খবর পেয়ে বিকেলের দিকে শয়নকক্ষ থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তেরর জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ।
  
মিঠাপুকুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিরুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় নিহতের শ্বশুর আব্দুর রাজ্জাক ও দেবর সোহেল রানাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নিহতের বাবা আবদুর রহিম একটি হত্যা মামলা করেছেন।  

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা