kalerkantho

বুধবার । ১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ এপ্রিল ২০২১। ১ রমজান ১৪৪২

একটি ঘর কি পেতে পারেন না অসহায় প্রিয় রঞ্জন চাকমা??

পানছড়ি (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি    

৯ মার্চ, ২০২১ ২২:০৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



একটি ঘর কি পেতে পারেন না অসহায় প্রিয় রঞ্জন চাকমা??

আমি তো প্রতিবন্ধী মানুষ। কোনো কাম-কাজ করতে পারি না। সারাবছর ঘরে বসে বসে খাই। আমার বৌ মানুষের বাড়ি, জমিনে কাজ ও জঙ্গলের লাকড়ি বিক্রি করেই সংসার চালায়। একমাত্র ছেলে এখনো কোনো কাজ কর্ম করে না। প্রতিবন্ধী ভাতা বছরে নয় হাজার টাকা পাই। এই টাকা দিয়ে সংসারের খরচাদি কোনো রকম চলে। অসুখ-বিসুখ হলে মানুষের কাছে হাত পাততে হয়। আমার ঘরটা অনেক পুরনো। চারিদিকে ভাঙা বেড়া নিয়ে চার-পাঁচটি খুটির ওপর কোনো রকম দাঁড়িয়ে আছে। এবারে বর্ষা মৌসুমের আগে ঘর মেরামত না হলে খুব কষ্ট পাব। তাছাড়া হালকা বাতাসেই ঘরটি উড়ে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটাও সময়ের ব্যাপার মাত্র। আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে একখান ঘর চাই। ঘর পাইলে আমি অনেক আর্শিবাদ করব।

ছোট্ট একটা ঘরের মেঝেতে শুয়ে এই কথাগুলো বললেন পানছড়ি উপজেলার উল্টাছড়ি ইউপির কুন্তুরামপাড়া গ্রামের বয়োবৃদ্ধ প্রতিবন্ধী মৃত নলীন্দ্র চাকমার ছেলে প্রিয় রঞ্জন চাকমা (৭২)।

উল্টাছড়ি ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান সুব্রত চাকমার মাধ্যমে খবর পেয়ে সরেজমিনে গেলে কান্নাজড়িত কণ্ঠে প্রিয় রঞ্জন চাকমা তার দুঃখের কথাগুলো তুলে ধরে।

সুব্রত চাকমা জানান, লোকটি একেবারে অসহায়। ডান হাতটি বাঁকা। যা দিয়ে কাজ তো দূরের কথা নিজেই ঠিকমত চলাফেরা করতে পারেন। তার বৌ মানুষের কাজ করলেই চুলোতে আগুন জ্বলে না হয় উপোস। তাই এই অসহায় প্রতিবন্ধীকে সঠিক তদন্তপূর্বক একটি ঘর প্রদানের জন্য প্রশাসন তথা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা