kalerkantho

মঙ্গলবার । ৭ বৈশাখ ১৪২৮। ২০ এপ্রিল ২০২১। ৭ রমজান ১৪৪২

প্রেম, অতঃপর কলঙ্ক!

আড়াইহাজার (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

৮ মার্চ, ২০২১ ২১:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রেম, অতঃপর কলঙ্ক!

অভিযুক্ত তরুণ।

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে স্পিনিং মিলের এক নারী শ্রমিককে (১৮) ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। পুলিশ ধর্ষণকাণ্ডে অভিযুক্ত আশিককে (২১) গ্রেপ্তার করেছে। আর ধর্ষণের শিকার ওই নারীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

আড়াইহাজার থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ধর্ষণের শিকার তরুণী উপজেলার মাহমুদপুর ইউনিয়নের এক দরিদ্র পিতার সন্তান এবং একটি স্পিনিং মিলের নারী শ্রমিক। তিনি দীর্ঘদিন মিলে কর্মরত থাকায় তার আসা যাওয়ার লেগুনার চালক উপজেলার দুপ্তারা ইউনিয়নের চরপাড়া এলাকার মোস্তফার ছেলে আশিকের সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিগত ছয় থেকে সাত মাস আগে আশিক নিজেকে অবিবাহিত পরিচয় দিয়ে ওই তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেন। পরে তিনি তরুণীকে কৌশলে বিভিন্নস্থানে ঘুরতে নিয়ে গিয়ে বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে ইচ্ছার বিরুদ্ধে একাধিকবার শারীরিক মিলন করেন।

গত ১ ডিসেম্বর স্পিনিং মিলের কাজের শেষে রাত ১১টার দিকে আশিক তরুণীকে কৌশলে তার বাড়ি চরপাড়া এলাকায় নিয়ে যান। ওই দিন আশিকের বাড়িতে অন্য কেউ ছিল না। রাতে আশিক ফের ইচ্ছার বিরুদ্ধে ওই তরুণীর সঙ্গে শারীরিক মিলন করেন। পরে এ ঘটনার বিচার চাওয়ার কথা বললে আশিক তাকে বিয়ে করবেন বলে চুপ থাকতে বলেন। এভাবে  তিনি সময় ক্ষেপণ করতে থাকেন।

সম্প্রতি ওই তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। এই ঘটনা আশিককে জানালে তিনি বিয়ে করবেন না বলে জানিয়ে গা ঢাকা দেন। এ ঘটনা তরুণী স্থানীয়ভাবে জানিয়ে বিচার না পেয়ে রবিবার রাতে আশিকের বিরুদ্ধে আড়াইহাজার থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। এ অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ সোমবার আশিককে আড়াইহাজার বাজার থেকে গ্রেপ্তার করে। 

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম ধর্ষণের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ধর্ষণের শিকার তরুণীর মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা