kalerkantho

রবিবার। ৫ বৈশাখ ১৪২৮। ১৮ এপ্রিল ২০২১। ৫ রমজান ১৪৪২

শহীদ এম মনসুর আলী ডিগ্রি কলেজ

তাড়াশে চার শিক্ষকের সাত মাস যাবত বেতনভাতা বন্ধ

তাড়াশ-রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি   

৫ মার্চ, ২০২১ ২১:১৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তাড়াশে চার শিক্ষকের সাত মাস যাবত বেতনভাতা বন্ধ

গত সাত মাস ধরে বেতনভাতা না পেয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার গুল্টা বাজার শহীদ এম মনসুর আলী ডিগ্রি কলেজের চার জন শিক্ষক। কলেজের অধ্যক্ষ ও গভার্নিং বডির সভাপতির বিভিন্ন অনিয়ম দুর্নীতি, জাল স্বাক্ষর ও ভুয়া রেজুলেশন করে শিক্ষকদের ফাঁসানোর প্রতিবাদ করায় কলেজের সহকারী অধ্যাপক ও সিনিয়র প্রভাষকসহ চার জনের কপালে জুটেছে বেতন ভাতা বন্ধের ওই শাস্তি।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ সালের ১৭ মার্চ গুল্টা বাজার শহীদ এম মনসুর আলী ডিগ্রি কলেজের নির্মাণাধীন গেট ধসে পরে গুল্টা হাটে আসা চার জন হাটুরে লোক নিহত হন। যা নিয়ে নিহতের পরিবারের সদস্যরা বাদী হয়ে কলেজের অধ্যক্ষ ও গভার্নিং বডির সভাপতিসহ পাঁচ জনকে আসামি করে আদালতে মামলা করেন।

সহকারী অধ্যাপক আবুল বাশার, মোজাম্মেল হক, সুশীল কুমার মাহাতো, এস,এম, হেলাল উদ্দিন অভিযোগ করে বলেন, গুল্টা বাজার শহীদ এম মনসুর আলী ডিগ্রি কলেজের নির্মাণাধীন গেট ধসে পরে চার জন লোক নিহতের ঘটনার মামলার আসামি কলেজের অধ্যক্ষ ও সভাপতিসহ পাঁচ জন সদস্য মামলা থেকে নিজেদের বাঁচতে ভুয়া রেজুলেশন করে সেখানে গেট নির্মাণের ভুয়া কমিটি করে আমাদের চারজন শিক্ষককে সদস্য করা হয়।। আর ওই ভুয়া কমিটি করার প্রতিবাদে তাতে আমরা স্বাক্ষর না করায় অধ্যক্ষ ও গর্ভানিং বডির সভাপতি আমাদের বেতন ভাতা বন্ধ করে দেন।

তারা আরো বলেন, মূলত কলেজের গেট নির্মাণের সময় কোনো কমিটিই গঠন করা হয়নি। আমাদের ফাঁসানোর জন্যই তারা ভুয়া রেজুলেশন ও জাল স্বাক্ষর করে একটি কমিটি গঠন করেন যাতে তারা মামলা থেকে রেহাই পান। অথচ আমরা চার শিক্ষক ওই গেট নির্মাণ সম্পর্কে কোনো কিছুই জানি না। 

পরবর্তীতে তা নিয়ে সিরাজগঞ্জ জেলা প্রসাশকের তদন্ত টিমের কাছে বক্তব্য দেওয়ার অপরাধে গত আগস্ট ২০২০ থেকে ওই কলেজের ভুগোল বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোজাম্মেল হক, হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আবুল বাশার সরকার, পরিসংখ্যান বিভাগের সিনিয়র প্রভাষক এস এম হেলাল উদ্দিন, গণিত বিভাগের প্রভাষক সুশীল কুমার মাহাতোর বেতন ভাতার বিলে কলেজ অধ্যক্ষ আসাদুজ্জামান, গর্ভানিং বডির সভাপতি গজেন্দ্র নাথ মাহাতো সাত মাস যাবত বেতন-ভাতার বিলে স্বাক্ষর বন্ধ রেখেছেন। 

ফলে গত সাত মাস যাবত ওই শিক্ষকগণ বেতনভাতা না পেয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

অবশ্য এ ব্যাপারে কলেজের অধ্যক্ষ আসাদুজ্জামান ও গর্ভানিং বডির সভাপতি গজেন্দ্র নাথ মাহাতোর সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা এ প্রসঙ্গে কোনো মন্তব্য করতে রাজী হননি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা