kalerkantho

মঙ্গলবার । ৭ বৈশাখ ১৪২৮। ২০ এপ্রিল ২০২১। ৭ রমজান ১৪৪২

মির্জাপুরে একদিনে তিন লাশ

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

৪ মার্চ, ২০২১ ১৩:০৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মির্জাপুরে একদিনে তিন লাশ

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর থানা পুলিশ হযরত আলী মোল্লা (৬০) ও আলেছা খাতুন (২২) নামে দুজনের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার মির্জাপুর থানা পুলিশ উপজেলার মহেড়া ইউনিয়নের কুমুল্লি বিল ও গোড়াই দক্ষিণ নাজিরপাড়া থেকে তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করে। এছাড়া একই দিনে মির্জাপুরে এক স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। 

হযরত আলী মহেড়া ইউনিয়নের দেওভোগ উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত. কুদরত আলী মোল্লার ছেলে এবং আলেছা খাতুন শেরপুরের শ্রীবরতী উপজেলার রাঙ্গাজান গ্রামের দবির হোসেনের স্ত্রী। 

পুলিশ জানায়, গত ২৩ ফেব্রুয়ারি রাতে খাবার শেষে হযরত আলী মোল্লা দেওভোগ গ্রামের পাশে কুমুল্লি বিলে মাছ ধরতে যান। এরপর থেকে তিনি নিখোঁজ হন। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও তার সন্ধ্যায় মিলেনি। গতকাল বুধবার সকাল ১১টার দিকে হযরতের ভাতিজা বিলের পাশে জমিতে সার দিতে গেলে দুর্গন্ধ পান। পরে স্থানীয় লোকজনকে ডেকে খোঁজাখুঁজি করে অর্ধগলিত মৃতদেহ দেখতে পান। খবর পেয়ে মির্জাপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করেন। তার মাথায় ও শারীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। পরে পরিবারের লোকজন তার পরিচয় নিশ্চিত করেন। ময়নাতদন্ত শেষে পুলিশ মৃতদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে। হযরত আলীর ছেলে সুজন বাদী হয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের নামে মির্জাপুর থানায় একটি মামলা করেন। 

এছাড়া বুধবার বিকেলে মির্জাপুর থানা পুলিশ গোড়াই শিল্পাঞ্চল এলাকার দক্ষিণ নাজির পাড়ার একটি ভাড়া বাসা থেকে আলেছা খাতুন নামে এক গার্মেন্টকর্মীর মৃতদেহ উদ্ধার করেন। 

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানান, কয়েক মাস আগে গার্মেন্ট কর্মী দবির হোসেনের সঙ্গে আলেছা বেগমের বিয়ে হয়। তারা দক্ষিণ নাজিরপাড়া গ্রামের আবু সিদ্দিকীর বাড়িতে ভাড়া থাকতেন এবং একই গার্মেন্টে চাকরি করতেন। বিয়ের পর থেকে তাদের মধ্যে কলহ লেগেই থাকতো। বুধবার সকালেও তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। একপর্যায় স্বামী দবির হোসেন স্ত্রী আলেছাকে ঘরের ভেতর হত্যা করে পালিয়ে যান। আলেছার সহকর্মীরা কর্মস্থলে যাওয়ার জন্য ডাকতে গেলে ঘরের ভেতর তার মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন। পুলিশ বিকেলে ঘটনাস্থলে গিয়ে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছেন। 

মির্জাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. গিয়াস উদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ লাশ দুটি উদ্ধার করা হয়েছে। দুটি মৃতদেহেই আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। থানায় মামলা হয়েছে। আলেছার স্বামী পলাতক রয়েছে। প্রকৃত আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে তিনি জানান। 

মির্জাপুরে ৮ম শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা
গতকাল বুধবার বিকেলে লিজা আক্তার নামে ৮ম শ্রেণির এক ছাত্রী গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে জানা গেছে। লিজা উপজেলার তরফপুর ইউনিয়নের ছিটমামুদপুর গ্রামের আব্দুল লতিফ মিয়ার মেয়ে। 

মির্জাপুর থানার উপপরিদর্শক মো. ফয়েজ আহমেদ জানান, খবর পেয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা