kalerkantho

শুক্রবার । ৩ বৈশাখ ১৪২৮। ১৬ এপ্রিল ২০২১। ৩ রমজান ১৪৪২

বাস-মাইক্রো সংঘর্ষ

সড়কে ঝরল পৌর মেয়রের স্ত্রী-ছেলেসহ তিন প্রাণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

৪ মার্চ, ২০২১ ০০:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সড়কে ঝরল পৌর মেয়রের স্ত্রী-ছেলেসহ তিন প্রাণ

ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলায় মাইক্রোবাসের সঙ্গে বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র নিমাই চন্দ্র সরকারের স্ত্রী ও ছেলেসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। এ দুর্ঘটনায় মেয়রসহ গুরুতর আহত সাতজনকে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

বুধবার (৩ মার্চ) রাত ৯টার দিকে উপজেলার ঢাকা-খুলনা মহসড়কের কাইচাইল ইউনিয়নের কাইলার মোড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। গত রাত ১২টায় এ প্রতিবেদন লেখার সময় মেয়রকে হেলিকপ্টারযোগে ঢাকায় নেওয়ার প্রস্তুতি চলছিল।

নিহতরা হলেন- নগরকান্দা পৌরসভার মেয়র নিমাই চন্দ্র সরকারের স্ত্রী সঞ্চিতা সরকার (৪৫), ছেলে গৌরব সরকার (২২) এবং মেয়রের সহযোগী কামাল মাতুব্বর (৪০)।

স্থানীয় লোকজন জানায়, পারিবারিক কাজে ভাঙ্গায় গিয়েছিলেন মেয়র। সেখান থেকে পরিবার নিয়ে মাইক্রোবাসে করে ফিরছিলেন তিনি। ফেরার পথে রাত সাড়ে ৯টার দিকে নগরকান্দার কাইলার মোড় এলাকায় মাইক্রোবাসের সঙ্গে বিপরীত দিক আসা জিএস পরিবহনের একটি বাসের সংঘর্ষ হয়। এতে দুর্ঘটনাস্থলেই সঞ্চিতা সরকার ও কামাল মাতুব্বর নিহত হন। আহত নিমাই সরকার ও তাঁর ছেলে গৌরব সরকারকে গুরুতর আহত অবস্থায় ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে গৌরব মারা যান।

খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে যান ফরিদপুর জেলা প্রশাসক অতুল সরকার, হাসপাতালের পরিচালক সাইফুর রহমান, পৌর মেয়র অমিতাভ ঘোষ, জেলা আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক আইভী মাসুদসহ দলীয় নেতাকর্মীরা।

হাসপাতালের চিকিৎসক স্বপন বিশ্বাস জানান, মেয়র নিমাইয়ের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাঁকে সর্বোচ্চ চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার এসআই জুয়েল রানা জানান, জিএস পরিবহনের বাসটি গোপালগঞ্জ থেকে ঢাকা যাচ্ছিল। বাসটির চার-পাঁচজন যাত্রী আহত হয়েছে। দুর্ঘটনার পর জব্দ করা হয়েছে ঘাতক বাস।

জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেন, মেয়রকে দ্রুত নিউরোলজিস্টের কাছে নেওয়া দরকার। তাঁর উন্নত চিকিত্সার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা