kalerkantho

রবিবার। ৫ বৈশাখ ১৪২৮। ১৮ এপ্রিল ২০২১। ৫ রমজান ১৪৪২

কর্মচারীকে সাবেক চেয়ারম্যানের গালি, বিনিময়ে দিতে হলো প্রাণ!

সাতকানিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

৩ মার্চ, ২০২১ ২০:২৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কর্মচারীকে সাবেক চেয়ারম্যানের গালি, বিনিময়ে দিতে হলো প্রাণ!

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় আওয়ামী লীগ নেতা ও কেঁওচিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল হক মিঞা হত্যার রহস্য উন্মোচন করেছে পুলিশ। মূলত বেতন বৃদ্ধির বিষয়ে কথা বলার সময় গালি দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে বাড়ির কর্মচারী জমির উদ্দিন তাকে হত্যা করেন।

এ ঘটনায় বাঁশখালী পৌরসভার জলদি খলিশ্বা পাড়ার হাবিবুর রহমানের ছেলে ও নিহতের বাড়ির কর্মচারী জমির উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত আসামি ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছেন। 

আজ বুধবার সাতকানিয়া থানায় সংবাদ সম্মেলন করে এসব কথা জানিয়েছেন সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকারিয়া রহমান জিকু।

আসামি জমির উদ্দিনের বরাত দিয়ে তিনি জানান, ঘটনার দিন রাতে কর্মচারী জমির সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল হক মিঞাকে তার বেতন বৃদ্ধি করতে বলেন। তখন আবদুল হক মিঞা তাকে গালি দিয়ে কথা বলেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে কর্মচারী জমির তার কক্ষে গিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। ভোর রাতে জমির উদ্দিনের ঘুম ভাঙলে আবদুল হক মিঞার দেওয়া গালির কথা মনে পড়ে। এরপর জমির চেয়ারম্যান আবদুল হক মিঞার শয়নকক্ষে গিয়ে ঘুমন্ত অবস্থায় মাথায় আঘাত করেন। আবদুল হকের ঘুম ভেঙে গেলে তাকে বালিশচাপা দিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করেন।

সাতকানিয়া থানার ওসি মো. আনোয়ার হোসেন জানান, গ্রেপ্তারকৃত আসামি জমির উদ্দিনকে গতকাল আদালতে হাজির করা হয়। এ সময় জমির উদ্দিন হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ম্যাজিস্ট্রেটের নিকট স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা