kalerkantho

রবিবার। ৫ বৈশাখ ১৪২৮। ১৮ এপ্রিল ২০২১। ৫ রমজান ১৪৪২

৭০ বছরের বৃদ্ধকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করতে চান প্রভাবশালী

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

১ মার্চ, ২০২১ ২০:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৭০ বছরের বৃদ্ধকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করতে চান প্রভাবশালী

ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের শিমুলিয়া গ্রামে শতবছরের বসতবাড়ি থেকে উচ্ছেদের অভিযোগ পাওয়া গেছে প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে। ফুলপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) কার্যালয়ে হযরত আলী (৭০) নামে এক বৃদ্ধ এ অভিযোগ করেন।

জানা যায়, শিমুলিয়া গ্রামের হযরত আলীর বাবা মৃত আবেদ আলী একই গ্রামের মৃত রহমত উল্লার বাড়িতে কাজ করতেন। নিজের কোনো জমি না থাকায় ৮ শতাংশ জমির ওপর বাড়ি নির্মাণ করে থাকার অনুমোদন দেন বাড়ির মালিক। রহমত আলী মৃত্যুর পর হয়রত আলী দীর্ঘদিন ধরে পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছেন। হযরত আলী প্রায় ৭০ বছর ধরে বসবাস করার পর কোনো প্রকার কারণ ছাড়াই বসতভিটা ছাড়ার জন্য হুমকি দেন জমির মালিক রহমত আলীর ছেলে সামাদ নূর মিয়া। বর্তমানে ছোট একটি খুপড়ি ঘড়ে কোনো রকম দিন পার করছেন তিনি। নানা রোগে আক্রান্ত বৃদ্ধার নিজ বসতভিটাতে থাকার জন্য সংগ্রাম করে টিকে থাকা সম্ভব হচ্ছে না।

সরেজমিনে দেখা যায়, হযরত আলীর ছোট একটি খুপড়ি ঘর যা পলিথিনে মোড়ানো। টাকার অভাবে ছাউনি দিতে পারছেন না। শীতের মৌসুমে বাড়িতেই কাটাতে হয় তাকে। দুই ছেলে ও স্ত্রী নিয়ে তার সংসার। বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে বিনা চিকিৎসায় কাতরাচ্ছেন তিনি। এমন অবস্থায় বসতভিটা ছাড়ার জন্য হুমকি তার কাছে বড় বেদনার মতো লাগছে।

হযরত আলী বলেন, বাড়ির মূল মালিক জমি দেন আমাকে। এহন তার পোলারা নিবার গা ছ্যা। এইড্যা কেমন কথা। আমি মরে গেলেও বাড়ি থেকে বের হইবো না।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত সামাদ নূর মিয়া মিয়া বলেন, জমিটিতে নেকবর আলী নামের এক ব্যক্তি থাকতেন। তিনি মরে যাওয়ার পর ছেলে ইসলাম সিলেট চলে যান। তার মামা হযরত আলী দখল করে থাকতে থাকেন। একপর্যায়ে নিজেকে মালিকানা দাবি করেন এ বসতভিটার। প্রকৃতপক্ষে ইসলাম হচ্ছেন এ জমির দাবিদার। হযরত আলী আমার জমিতে বসবাস করে আমার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলা দায়ের করেন। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা