kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ বৈশাখ ১৪২৮। ৭ মে ২০২১। ২৪ রমজান ১৪৪২

রংপুর নর্দান (প্রা.) মেডিক্যাল কলেজ

ভুল বুঝিয়ে ভর্তি : শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

স্বপন চৌধুরী, রংপুর   

১ মার্চ, ২০২১ ১৬:০৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভুল বুঝিয়ে ভর্তি : শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

কলেজ কর্তৃপক্ষের প্রতারণার প্রতিবাদে ও মাইগ্রেশনের দাবিতে সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেছেন রংপুরের নর্দান (প্রা.) মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীরা। আজ সোমবার বেলা দুপুর ১২টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত রংপুর-বুড়িরহাট সড়কের নর্দান মেডিক্যাল কলেজের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন তারা। এসময় সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। চরম ভোগান্তিতে পড়েন সাধারণ মানুষ।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, প্রায় এক মাস ধরে কলেজ কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানানো, রাজধানীতে গিয়ে মানববন্ধন ও রংপুরে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে ঘেরাও করে বিক্ষোভ-মানববন্ধন করলেও কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে না। বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ নর্দান (প্রা.) মেডিক্যাল কলেজের দুর্নীতি যেনো চরম পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। তারা জানান, বেসরকারি এই প্রতিষ্ঠানটির বিএমডিসি’র অনুমোদন না থাকা সত্ত্বেও বিভিন্ন মামলার কাগজপত্র দেখিয়ে অবৈধভাবে শিক্ষার্থী ভর্তি করিয়ে আসছিল এতদিন। পাস করবার পরেও ইন্টার্নশিপ করতে না পারায় ইন্টার্নশিপের জন্য এবং রেজিস্ট্রেশনসহ অন্য প্রতিষ্ঠানে মাইগ্রেশনের দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীরা আরো জানান, ওই প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নেই, বিএমডিসি এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো অনুমোদনও নেই। তার পরেও নেপাল থেকে আসা ৩২ জনসহ তিন শতাধিক শিক্ষার্থী এখানে ভর্তি হয়ে লেখাপড়া করে আসছেন। কর্তৃপক্ষ বার বার আশ্বাস দেওয়ার পরেও কোর্স পরিচালনায় কোনো অনুমোদন আনতে পারেনি। এমন কি যারা শেষ বর্ষ পাস করেছেন তাদের ইন্টার্নশিপের কোনো ব্যবস্থা করতে পারেনি কলেজ কর্তৃপক্ষ। ধার করা রোগী ও শিক্ষক দিয়ে ক্লাস করিয়ে তাদের সঙ্গে প্রতারণার মাধ্যমে শিক্ষা জীবন ধ্বংস করা হয়েছে। কর্তৃপক্ষ হাতিয়ে নিয়েছে কোটি কোটি টাকা। দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চলবে বলেও জানান তারা।

এ সময় নেপাল থেকে কলেজটিতে পড়তে আসা সারমা ও নারমিন অভিযোগ করেন, তারা পড়াশোনা করতে এসেছিলেন। তাদের অনেক ধরনের আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারা এখানে পলখাপড়ার নামে প্রতারণার শিকার হয়েছেন। এ অবস্থায় তারা অন্য বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজে পড়ার সুযোগ দাবি করেন।

একই ধরণের অভিযোগ করেন শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী আকলিমা আখতার ও রফিক হাসনাইন। তারা বলেন, আমাদের বাবা-মা জমি বিক্রি করে বিপুল পরিমাণ টাকা দিয়ে এখানে ভর্তি করেছেন। কলেজ কর্তৃপক্ষ যে প্রতারক তা আমরা জানতাম না। প্রতিষ্ঠানে বিএমডিসি ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো অনুমোদন নেই সেটাও আমাদের বলা হয়নি। তাদের শিক্ষা জীবন রক্ষার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।

এদিকে দুপুর একটার দিকে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত হয়ে সড়ক ছেড়ে দিতে আহ্বান জানালেও শিক্ষার্থীরা তাদের অবস্থানে অটল থাকেন। একপর্যায়ে দেড়টার দিকে তারা সড়ক ছেড়ে পাশে মানববন্ধন কর্মসূচি শুরু করেন।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (কোতয়ালি জোন) আলতাফ হোসেন জানান, শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে সড়ক ছেড়ে দিতে বলা হয়েছে। আমরা কলেজ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি কিন্তু তারা এখন পর্যন্ত কোনো রেসপন্স করেননি। আপাতত শিক্ষার্থীরা সড়ক ছেড়ে দেওয়ায় যান চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে।



সাতদিনের সেরা