kalerkantho

শুক্রবার । ৩ বৈশাখ ১৪২৮। ১৬ এপ্রিল ২০২১। ৩ রমজান ১৪৪২

সৈয়দপুরে জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থীর ভোট বর্জন

নীলফামারী ও সৈয়দপুর প্রতিনিধি   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৬:১২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সৈয়দপুরে জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থীর ভোট বর্জন

নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌরসভার নির্বাচনে জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী সিদ্দিকুল আলম ভোট বর্জন করেছেন। আজ রবিবার বেলা সোয় ১১টার দিকে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন।

সৈয়দপুর শহরের পাঁচমাথা মোড় এলাকার জাতীয় পার্টির নির্বাচনী কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি ওই ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন। 

এসময় তিনি অভিযোগ করে বলেন, এখানে নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হচ্ছে না। কেন্দ্র থেকে আমার এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে। মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোটকেন্দ্রে এলেও ভেতরে থাকা নৌকার লোকজন ইভিএম এ ভোটারদের ভোট কেড়ে নিচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, প্রশাসনের লোকজন আমার কর্মী সমর্থকদের হুমকি প্রদান করছেন। সৈয়দপুর হিন্দি স্কুল কেন্দ্রে মনিরুজ্জামান নামের এক পুলিশ সদস্য লাঙ্গলের ভোটারদের বের করে দেন। এমনকি ব্রাশ ফায়ার করে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছেন তিনি। শুধু প্রশাসনই নয়, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও আমার কর্মী, সমর্থক এবং ভোটারদের হুমকি প্রদান করে কেন্দ্র থেকে তাড়িয়ে দিচ্ছেন। আমার নিশ্চিত বিজয় দেখে তারা এমন হীন কাজে জড়িত হয়েছেন। এ অবস্থায় আমার ভোট বর্জন ছাড়া কোনো উপায় নেই।
 
সংবাদ সম্মেলনে সিদ্দিকুল আলমের স্ত্রী ইয়াসমিন আলম, জাপার কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ফয়সাল দিদার দিপু, সৈয়দপুর জাপা নেতা ডা. সুরত আলী, সৈয়দপুর সরকারী হিন্দী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের পোলিং এজেন্ট সুমনা আলম, শহীদ জিয়া শিশু নিকেতন কেন্দ্রের পোলিং এজেন্ট ইতিসহ সৈয়দপুর জাতীয় পার্টির অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। 

উল্লেখ্য, পৌরসভাটিতে ভোটগ্রহণ শুরু হয় সকাল ৮টায়। টানা চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। মেয়র পদে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে রাফিকা আক্তার জাহান বেবী, বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকে মো. রশিদুল হক সরকার, জাতীয় পাটির লাঙ্গল প্রতীতে সিদ্দিকুল আলম, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের হাতপাখা প্রতীকে মো. নুরুল হুদা, মোবাইল ফোন প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী রবিউল আউয়াল রবি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
১৫টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিল পদে ৮৭ জন, পাঁচটি সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ২১ জন প্রার্থী রয়েছেন। ৪১টি ভোটকেন্দ্রে ভোট প্রদান করবেন ৯৩ হাজার ৮৯৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৪৬ হাজার ৭৬৩ জন এবং নারী ৪৭ হাজার ১৩০ জন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা