kalerkantho

শনিবার । ২৭ চৈত্র ১৪২৭। ১০ এপ্রিল ২০২১। ২৬ শাবান ১৪৪২

শেরপুরে ৩৬ গ্রামের মা-শিশুদের দেওয়া হবে বিশেষ পুষ্টি প্রশিক্ষণ

শেরপুর প্রতিনিধি   

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শেরপুরে ৩৬ গ্রামের মা-শিশুদের দেওয়া হবে বিশেষ পুষ্টি প্রশিক্ষণ

পুষ্টি সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে শেরপুরে সদর উপজেলার ১৪ ইউনিয়নের ৩৬ গ্রামের মা ও শিশুদের দেওয়া হবে বিশেষ পুষ্টি প্রশিক্ষণ। যাতে স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত ও সহজপ্রাপ্য খাদ্য উপাদান ব্যবহার করে পুষ্টিমান সমৃদ্ধ খাবার তৈরি করে নিজেরা খেতে পারেন। এতে মারাত্মক অপুষ্টির শিকার শিশুদের পুষ্টির উন্নয়ন ঘটবে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে শেরপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে উপজেলা পুষ্টি উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভায় এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফিরোজ আল মামুন-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পুষ্টি কমিটির উপদেষ্টা উপজেলা চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম।

সভায় উপজেলার ১৪ ইউনিয়নের ১৬৭টি কিশোরী ক্লাবের সদস্যদের স্বাস্থ্য ও পুষ্টি সচেতনতা বাড়াতে উঠোন বৈঠক করার ওপর জোর দেওয়া হয়। যাতে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা পুষ্টি সম্পর্কে বিস্তারিত জ্ঞান লাভ করতে পারে। এ ছাড়া গর্ভবতী মায়েরা যাতে কুসংস্কার মুক্ত হয়ে বেশী বেশী খাবার গ্রহণ করতে পারেন, খাদ্য নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় সরকার প্রদত্ত জিংক সমৃদ্ধ চাল যেন উপকারভোগীরা বিক্রি না করে নিজেরা খায় তার দিকে দৃষ্টি রাখার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এ ছাড়া কামারিয়া ইউনিয়নের আন্ধারিয়া কবিরপুর মৌজায় নির্মিতব্য তৃতীয় লিঙ্গ জনগোষ্ঠির আবাসনে বসবাসকারীদের পুষ্টি উন্নয়নের জন্য সবজি বাগান তৈরি, বীজ বিতরণ এবং ৪০টি ছাগল প্রদান করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

শেরপুর সদরে পুষ্টি উন্নয়নে বিংগ্স (বাংলাদেশ ইনিশিয়েটিভ টু এনহেন্স নিউট্রেশন সিকিউরিটি অ্যান্ড গভর্ণেন্স) প্রকল্পর আওতায় যৌথভাবে কাজ করছে সরকার এবং বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ‘উন্নয়ন সংঘ’। ওয়ার্ল্ডভিশন বাংলাদেশ এতে সহযোগিতা করছে। ওই প্রকল্পের আওতায় উপজেলা পুষ্টি উন্নয়ন সমন্বয় কমিটি সক্রিয়করণ এবং বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

বিংস প্রকল্পের উপজেলা সমন্বয়কারী আনোয়ার জাহিদ-এর সঞ্চালনায় সভায় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন পুষ্টি উন্নয়ন কমিটির সদস্য সচিব সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. মোবারক হোসেন, কৃষি কর্মকর্তা রুবাইয়া ইয়াসমিন, বিভিন্ন বিভাগের সরকারি কর্মকর্তা, ইউপি চেয়ারম্যান, সাংবাদিক, শিক্ষক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিগণ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা