kalerkantho

মঙ্গলবার । ৭ বৈশাখ ১৪২৮। ২০ এপ্রিল ২০২১। ৭ রমজান ১৪৪২

নদীর পাড়ে প্রভাবশালীর ঘর রেখেই নদী খনন!

আবুল হাসান ফায়েজ, মাধবপুর (হবিগঞ্জ)   

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৬:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নদীর পাড়ে প্রভাবশালীর ঘর রেখেই নদী খনন!

হবিগঞ্জের মাধবপুরে রক্ত নদীর ওপর প্রভাবশালীর ঘর রেখে নদী খনন করার ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে এলাকাবাসী। জানা যায়, সম্প্রতি এক্তারপুর-মিঠাপুকুর-হাসিমপুর-সুবিদপুর এলাকায় দিয়ে বসে যাওয়া রক্ত নদী খনন করার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ড থেকে বরাদ্দ দেওয়া হয়। ঠিকাদার এক্সেভেটর মেশিন দিয়ে মাটি কাটা শুরু করে। কিন্তু নদীর পাড় দখল করে কিছু লোক বাড়ি ও স্থাপনা নির্মাণ করলে ঠিকাদার সে স্থাপনাগুলো ভেঙে নদী খনন করলে সুবিদপুর এলাকার একজন প্রভাবশালীদের বাড়ি নদীর ভেতর হলেও ঠিকাদার তার ঘর না ভেঙে নদী খনন করে চলে আসেন। তা নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। 

স্থানীয় লোকজন, উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে বিষয়টি অবগত করে ওই প্রভাবশালীর ঘর ভাঙার দাবি জানান।

উপজেলার হাসিমপুর গ্রামের রজব আলীর ছেলে আকবর আলী জানান, সরকার নদীর করার জন্য ঠিকাদার দিয়েছেন। ঠিকাদার নদী সঠিকভাবে খনন করুক। কিন্তু নদীর ওপর ফজলুর রহমানের ছেলে সাদেক মিয়ার ঘরসহ অন্যান্য স্থাপনা নির্মাণ করে রেখেছে কিন্তু সেগুলো না ভেঙে নদী এক পাশে কম কেটে খনন করা হচ্ছে।

সুবিদপুর গ্রামের কামিনী ভৌমিকের ছেলে তরুণী ভৌমিক জানান, তার ভেঙে নদী খনন করা হয়েছে। কিন্তু সাদেক মিয়ার ঘর ভাঙা হয়নি।

সুবিদপুর গ্রামের জমির হোসেন জানান, টিকাদার সমানভাবে নদী খনন করুক। তাতে আমরা সহযোগিতা করব। কিন্তু নদী দখল করে একজন ঘর নির্মাণ করে রেখেছে সে ঘর ভাঙা হচ্ছে না।

ঠিকাদার হারুনুর রশিদ গোলাপ জানান, নদীর খনন করার সময় কারো ঘর ভাঙা ও স্থাপনা ভাঙার দায়িত্ব তাকে দেওয়া হয়নি। তারপর তিনি সাধ্যমতো সবাইকে বুঝিয়ে নদী খনন করেছেন।

এ ব্যাপারে বহরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান আরিফ জানান, বিষয়টি শুনেছি। টিকাদারকে বিষয়টি বলা হয়েছে। ঠিকাদার বলেছে বিষয়টি সমাধান করে দেবে। সমাধান না হলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা