kalerkantho

বুধবার । ৮ বৈশাখ ১৪২৮। ২১ এপ্রিল ২০২১। ৮ রমজান ১৪৪২

জমি নিয়ে বিরোধ

ইন্দুরকানীতে ভাতিজাদের হাতে চাচা খুন

ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৭:২৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইন্দুরকানীতে ভাতিজাদের হাতে চাচা খুন

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ভাতিজাদের হাতে চাচা খুন হয়েছেন। গতকাল শনিবার রাতে উপজেলার রামচন্দ্রপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ইন্দুরকানী থানার ওসি মো: হুমায়ুন কবির আজ রবিবার দুপুরে সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মধ্য বালিপাড়া গ্রামের মোঃ ইসমাইল চৌকিদার (৫৫) ও তার ছেলে ফিরোজ চৌকিদার (২৫) রামচন্দ্রপুর এলাকার দেবীপুরে তার (ইসমাইল) শশুর বাড়ি যাচ্ছিল। এ সময় রাস্তায় পূর্ব পরিপরিকল্পিত ভাবে ইসমাইল চৌকিদারের ভাতিজা সাইফুল চৌকিদার ও শহীদ চৌকিদারের নেতৃত্বে সোহেল ও জুয়েল সহ ৭ থেকে ৮ জন লোক তাদেরকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করে। পরে স্থানীয়রা তাদেরকে আহত অবস্থায় দেখতে পেয়ে ৯৯৯ কল দেয়। 

ফোন পেয়ে ইন্দুরকানী থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গুরুতর অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে প্রথমে, পিরোজপুর সদর হাসাপাতালে এবং অবস্থার অবনতি হলে পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। পরে সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইসমাইল চৌকিদার শনিবার রাত ৪টায় মারা যান। এ ছাড়া তার ছেলে ফিরোজ চৌকিদার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তার অবস্থাও গুরুতর।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিরোধপূর্ণ সম্পত্তিতে ইসমাইল চৌকিদারের ভাতিজা সাইফুল চৌকিদার ও শহীদ চৌকিদার ঘর তুলতে গেলে তারা চাচা আদালতের মাধ্যমে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। তাই ভাতিজারা ক্ষিপ্ত হয়ে পরিকল্পিত ভাবে তাদের চাচার ওপর হামলা চালায়।

নিহতের ছেলে চিকিৎসাধীন ফিরোজ চৌকিদার জানান, শনিবার রাতে আমি ও আমার পিতা আমার নানা বাড়ি যাওয়ার সময় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আমার চাচাতো ভাই সাইফুল চৌকিদার ও শহীদ চৌকিদার, জুয়েল চৌকিদার ও সোহেল চৌকিদার সহ ৭/৮ জন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের উপর হামলা চালায়। 

ইন্দুরকানী থানার ওসি মোঃ হুমায়ুন কবির জানান, শনিবার রাতে খবর পেয়ে উপজেলার রামচন্দ্রপুর এলাকা থকে পিতা ও পুত্রকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরে তাদেরকে চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় একজনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা