kalerkantho

শুক্রবার । ২০ ফাল্গুন ১৪২৭। ৫ মার্চ ২০২১। ২০ রজব ১৪৪২

মা, চাচা ও সৎবোন আটক

শিশুর গলা কেটে হত্যা, পরকীয়া নাকি পারিবারিক অশান্তি...?

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৩:২১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শিশুর গলা কেটে হত্যা, পরকীয়া নাকি পারিবারিক অশান্তি...?

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় মালেয়শিয়া প্রবাসির ছেলে তাওহীদ সরকারকে (৫) ঘরের ভেতর বঁটি দিয়ে জবাই করে হত্যা করেছে দূর্বৃত্তরা। নিহত তাওহীদ উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের ফকিরপাড়া গ্রামের আব্দুল গফুর সরকারের ছেলে। এ ঘটনায় নিহতের দাদা বাদশা সরকার বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামি দিয়ে শুক্রবার রাতে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।  

থানা পুলিশ এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে শুক্রবার রাতেই নিহত শিশুটির মা, সৎ বোন ও চাচাসহ চারজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। তবে প্রকৃত সন্দেহের তীর শিশুটির মায়ের দিকে। পারিবারিক অশান্তি ও পরকীয়া প্রেমের ঘটনাকে সামনে রেখে মামলা তদন্তে নেমেছেন পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আব্দুল গফুর সরকার প্রায় আড়াই বছর ধরে মালেয়শিয়া অবস্থান করেন। তাওহীদ বাড়িতে তার মা ও দাদা-দাদির সঙ্গে থাকত। শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে তাওহীদের মা দুলালী খাতুন ছেলেকে বাড়িতে রেখে তার শাশুড়ি গোলাপী খাতুনের সঙ্গে বাড়ির পাশে ভুট্টা ক্ষেতে যান। এসময় দুর্বৃত্তরা ঘরে ঢুকে তাওহীদকে ধারালো বঁটি দিয়ে জবাই করে চলে যায়। ঘাস নিয়ে দুলালী খাতুন বাড়ি ফরে ঘরে ঢুকে তাওহীদের গলা কাটা অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখতে পান। এ সময় তার চিৎকার শুনে দেবর সোলাইমান আলী ঘটনাস্থল থেকে তাওহীদকে উদ্ধার করে ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে সেখানেই তাওহীদ মারা যায়।

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, তাওহীদ সরকারের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমানে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের মা, সৎ বোন, চাচা ও একজন প্রতিবেশীকে আটক করা হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে হত্যার রহস্য উন্মোচিত হতে পারে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা