kalerkantho

রবিবার। ২২ ফাল্গুন ১৪২৭। ৭ মার্চ ২০২১। ২২ রজব ১৪৪২

উলিপুরে ৩৩৮ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নেই শহীদ মিনার

রোকনুজ্জামান মানু, উলিপুর (কুড়িগ্রাম)   

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:৩৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উলিপুরে ৩৩৮ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নেই শহীদ মিনার

ভাষা আন্দোলনের ৬৮ বছর পেরিয়ে গেলেও কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলায় ৩৩৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নির্মিত হয়নি শহীদ মিনার। ফলে ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস ও ভাষা শহীদদের সম্পর্কে জানে না এ প্রজন্ম। আর যেসব প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার আছে তা বছরের পর বছর পরে থাকে অযত্ন-অবহেলায়। তবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার কারণে এত বছরেও এসব প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মিত হয়নি বলে মনে করেন অনেকে।

সূত্র জানায়, এ উপজেলায় ২৬৮টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৬৫টি, কলেজ ৮টি ও মাদরাসা ৫৫ টিসহ মোট ৩৯৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর মধ্যে ৮টি কলেজ, ৪০টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ১০টি প্রাধমিক বিদ্যালয়ে ভাষা আন্দোলনের প্রতীক শহীদ মিনার থাকলেও ৫৫টি মাদরাসার একটিতেও শহীদ মিনার নেই। ফলে ৩৩৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ২১ ফেব্রয়ারি পালন করা হয় শুধুমাত্র জাতীয় পতাকা উ‌ত্তোলন ক‌রে। ফলে এসব প্রতিষ্ঠানে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীরা ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো থেকে বঞ্চিত থাকে। এনিয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। আর যেসব প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার আছে, তা বছরের পর বছর পরে থাকে অরক্ষিত। এসব শহীদ মিনারে কখনও গবাদি পশুর বিচরণ আবার কখনও বখাটেদের আড্ডাস্থলে পরিণত হয়।

শুভসংঘের উলিপুর শাখার সভাপতি নূরে আলম সিদ্দিকী জানান, স্বাধীনতার ৫০বছরেও এ উপজেলার অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার না থাকা সত্যি দুঃখজনক। এ এলাকার শিক্ষার্থীদেরকে মুক্তিযুদ্ধ ও ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস জানতে এসব প্রতিষ্ঠানে সরকারিভাবে শহীদ মিনার নিমার্ণ করা অতীব জরুরি।

উপজেলা মাধ্যমিক কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম বলেন, আমি সম্প্রতি এ উপজেলায় যোগদান করেছি। তবে যেসব প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই, সেসব প্রতিষ্ঠান প্রধানকে দ্রুত শহীদ মিনার নির্মাণের তাগিদ দেওয়া হবে।

উপজেলার নিবার্হী কর্মকর্তা  নূর-এ-জান্নাত রুমি বলেন, এ উপজেলায় বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই, এটি দুঃখজনক। বিষয়টি জানার পর আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করেছি। যতদ্রুত সম্ভব পর্যায়ক্রমে এসব প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নিমার্ণ করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা