kalerkantho

শুক্রবার । ১০ বৈশাখ ১৪২৮। ২৩ এপ্রিল ২০২১। ১০ রমজান ১৪৪২

রাস্তা থেকে মাইক্রোতে তুলে কিশোরীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ, আটক ২

বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার   

১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:১০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাস্তা থেকে মাইক্রোতে তুলে কিশোরীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ, আটক ২

কক্সবাজারে মাইক্রোবাসে তুলে অপহরণের পর এক কিশোরীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ করা হয়েছে। পরিবহন শ্রমিকরা দলবদ্ধ ধর্ষণ শেষে ওই কিশোরীকে একজন শ্রমিক নেতার কাছে উপঢৌকন দিতে গিয়েই পুলিশের হাতে ধরা পড়ে যায়। ধর্ষণের শিকার হতভাগি কিশোরী বর্তমানে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার রাতের এমন চাঞ্চল্যকর ঘটনাটির বিষয়ে কক্সবাজারের নবগঠিত ঈদগাঁও থানায় মামলা রুজু হয় শনিবার। পুলিশ ইতিমধ্যে শ্রমিক নেতা ও মাইক্রোবাস চালককে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তার হওয়া পরিবহন শ্রমিক নেতার নাম খোরশেদ আলম (৫০) ও মাইক্রোবাস চালকের নাম মাহমুদ উল্লাহ (৩৬)। তারা কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁও এবং ইসলামাবাদ এলাকার বাসিন্দা।

ঈদগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল হালিম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানিয়েছেন, ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত অন্যান্যদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চালানো হচ্ছে। ওসি জানান, গ্রেপ্তার হওয়া মাইক্রোবাস চালক মাহমুদ উল্লাহ ও পলাতক থাকা হেলপার গত বৃহস্পতিবার মহেশখালীর ধলঘাটা থেকে ধর্ষণের শিকার হওয়া কিশোরীকে কৌশলে অপহরণ করে।

চালক ও হেলপার কিশোরীকে ধর্ষণ করে থেমে থাকেনি। তারা তাদের আরো দুই সহপাঠিকে ডেকে এনে একে একে দলবদ্ধ হয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ করে। এরপর ধর্ষকরা পরিবহন শ্রমিক নেতা খোরশেদ আলমকে খুশি করার জন্য কিশোরীকে উপঢৌকন দেয়। শ্রমিক নেতা উপঢৌকন পাওয়া কিশোরীকে নিয়ে ঈদগাঁও বাস স্টেশনের একটি ভবনের ছাদে রাতের বেলায় ফূর্তি করতে নেয়। কিন্তু ধর্ষণের শিকার হওয়া কিশোরীর গগনবিদারি চিৎকার কাল হয়ে পড়ে। কিশোরীর চিৎকার শুনে স্টেশনের লোকজন পার্শ্ববর্তী ঈদগাঁও থানার পুলিশকে জানায়। পুলিশ এসে হাতেনাতে ধরে ফেলে শ্রমিক নেতা খোরশেদকে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা