kalerkantho

বুধবার । ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭। ৩ মার্চ ২০২১। ১৮ রজব ১৪৪২

উলিপুর পৌর নির্বাচন

ভোটের মাঠে উত্তাপ ছড়াচ্ছে বড় দুই দলের পাল্টাপাল্টি

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি   

২৮ জানুয়ারি, ২০২১ ১০:১২ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ভোটের মাঠে উত্তাপ ছড়াচ্ছে বড় দুই দলের পাল্টাপাল্টি

আগামী ৩০ জানুয়ারি উলিপুর পৌরসভা নিবার্চন। আর মাত্র ১দিন পরেই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে এ পৌরসভার ভোটগ্রহন। আসন্ন নিবার্চনকে ঘিরে বড় দুই দলের নেতাকর্মীদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ পৌরসভা নিবার্চনে মেয়র পদে ৩জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। তাদের মধ্যে আওয়ামী লীগের মামুন সরকার মিঠু (নৌকা), বিএনপির হায়দার আলী মিঞা (ধানের শীষ) ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আতাউর রহমান (হাতপাখা)। ক্ষমতাসীন দল আ‘লীগ পুরোদমে প্রচারণা চালালেও বিএনপি প্রার্থীর পক্ষে তেমন প্রচারণা চোখে পড়ে‌নি।

এদিকে, নিবার্চনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ভোটের মাঠে ততই উত্তাপ ছড়াচ্ছে। বড় দুই রাজনৈতিক দলের দুই প্রার্থীর বিস্তর অভিযোগ একে অপরের বিরুদ্ধে।

বিএনপি প্রার্থীর অভিযোগ, সরকার দলীয় নেতাকর্মীরা ধানের শীষের প্রচার প্রচারণায় বাঁধা দিচ্ছে। সেই সাথে বিএনপির নেতাকর্মীদের উপর হামলা-মামলাসহ বিভিন্ন ভয়ভীতি প্রদর্শন করা হচ্ছে। এতে করে স্থানীয় বিএনপির কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে।

তবে এসব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বিএনপির রাজনৈতিক চরিত্র মিথ্যাচার ও ষড়যন্ত্র বলে উল্লেখ করেছেন আ‘লীগ মনোনীত প্রার্থী। এ নিয়ে দুই প্রার্থী পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

বিএনপি প্রার্থী হায়দার আলীর অভিযোগ, নৌকা মার্কার লোকজন গভীর রাতে তার নেতাকর্মীদের বাড়িতে গিয়ে বিভিন্ন হুমকি-ধামকিসহ ধানের শীষের প্রচার মাইক ছিনিয়ে নিয়েছে। ধানের শীষের প্রচারণা না করা ও ভোট কেন্দ্রে এজেন্ট নিয়োগ না দিতেও হুমকি প্রদান করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, গত  শনিবার ১নং ওয়ার্ডে ধানের শীষের প্রচারণায় গেলে এক মহিলা কর্মীকে লাঞ্ছিত করে লিফলেট ছিড়ে প্রচারণা বন্ধ করতে বাধ্য করা হয়। এছাড়াও গত রবিবার গভীররাতে নৌকা মাকার্র প্রায় ৩৫-৪০ জন সংঘবদ্ধ হয়ে ১নং ওয়ার্ডের বিএনপি কর্মী আজিজার রহমান মাষ্টার ও আতাউর রহমানের বাড়িতে হামলা চালিয়েছে।

এ বিষয়ে তিনি রিটার্নিং কর্মকতার্সহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নিকট ৫-৬টি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। প্রতিনিয়ত এমন নানা ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ বিএনপি প্রার্থী হায়দার আলীর।

বিএনপি প্রার্থীর এসব অভিযোগকে মিথ্যাচার ও ষড়যন্ত্র উল্লেখ করে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেন আ‘লীগ প্রার্থী মামুন সরকার মিঠু। তিনি বলেন, বিএনপির রাজনৈতিক চরিত্র মিথ্যাচার ও ষড়যন্ত্র। বিএনপির দলীয় কর্মীরা মাথায় হেলমেট পরে নিজেদের প্রচার মাইক ছিনতাই করে নৌকা মার্কার কর্মীদের উপর দোষ চাপাচ্ছেন। নিজেদের বাড়িতে নিজেরাই হামলা চালিয়ে নৌকার কর্মীদের দোষ দিচ্ছেন। এ ধরনের মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে ইস্যু সৃষ্টি করে নির্বাচনী শান্ত পরিবেশকে উত্তপ্ত করার অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে। বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীরা বাড়িতে বসে কৌশলে ভোটারদেরকে টাকা দিয়ে ভোট ক্রয় করছেন বলেও জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সুষ্ঠু নির্বাচন চায়। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় জনগন নৌকা মাকার্য় ভোট দেবেন।
আওয়ামী লীগ প্রার্থীর আশংকা, ভোটের দিন বিএনপির কর্মীরা নিজেরাই ভোট কেন্দ্রে সংঘাত সৃষ্টি করে ভোটের পরিবেশ নষ্ট করে আওয়ামী লীগের উপর দোষ চাপানোর পায়তারা করছেন। এ কারণে বিএনপির প্রার্থী নির্বাচনী প্রচারনায় না থেকে ঘরে বসে শুধু মিথ্যাচার করছেন।

এদিকে, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে পৌর শহরের জনতা ব্যাংকের সামনে থেকে উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আব্দুর রশিদ সরকারকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

১৯৯৮ সালে স্থাপিত হয় উলিপুর পৌরসভা। এ পৌরসভায় ৯টি ওয়ার্ডে ভোটার রয়েছেন ৩৭ হাজার ৯১৫জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৮হাজার ৫৩৯ ও নারী ভোটার ১৯হাজার ৩৭৬জন। ১৮টি ভোট কেন্দ্রে কক্ষ রয়েছে ১১৩টি। মেয়র পদে ৩জন প্রার্থী ছাড়াও কাউন্সিলর পদে ৫১জন এবং সংরক্ষিত মহিলা আসনে ১৩জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা