kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১২ রজব ১৪৪২

চট্টগ্রামে নির্বাচনী সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ছে, নিহত ২

অনলাইন ডেস্ক   

২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১২:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চট্টগ্রামে নির্বাচনী সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ছে, নিহত ২

বেলা যতই বাড়ছে, চট্টগ্রামে ততই ছড়িয়ে পড়ছে নির্বাচনী সহিংসতা। আওয়ামী লীগ সমর্থিত ও বিদ্রোহী ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যেই মূলত এই সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ছে। সহিংসতায় এ পর্যন্ত নগরীর পাহাড়তলী ও সরাইপাড়া ওয়ার্ডে দুজন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন অনেকে।

এর মধ্যে সকাল ৯টার দিকে নগরীর পাহাড়তলী ওয়ার্ডে ইউসেফ আমবাগান কারিগরি স্কুল ভোটকেন্দ্র দখলের ঘটনায় আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে আলাউদ্দিন নামে এক তরুণ নিহত হয়েছেন। তিনি কুমিল্লা জেলার সুলতান মিয়ার ছেলে বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) আলাউদ্দিন তালুকদার গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকালে ভোটগ্রহণ শুরুর পর পাহাড়তলী ওয়ার্ডের ওই ভোটকেন্দ্রে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী এবং বিদ্রোহী প্রার্থী মাহামুদুর রহমানের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন আলাউদ্দিন। তাকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তার বুকের নিচে গুলি লাগে। মরদেহ বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রাখা হয়েছে। সংঘর্ষে আরো চারজন আহত হয়েছেন। একটি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে ভোটকেন্দ্রের বাইরে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটলেও ওই কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে বলে জানিয়েছেন সহকারী রিটার্নিং অফিসার বশির আহমদ। তিনি বলেন, কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে। বাইরে ঝামেলা হলেও এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক।

এর আগে বুধবার সকাল ৮টার দিকে ১২ নম্বর ওয়ার্ডে (সরাইপাড়া) নির্বাচনী বিরোধকে কেন্দ্র করে আপন ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে আরেক ভাই নিহত হয়েছেন। নিহত ব্যক্তি ১২ নম্বর ওয়ার্ডের (সরাইপাড়া) আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী সাবের আহম্মদের কর্মী বলে জানা গেছে। তার নাম নিজামউদ্দীন মুন্না। ঘাতক ব্যক্তির নাম সালাউদ্দিন কামরুল। তিনি ১২ নম্বর সরাইপাড়া ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী নুরুল আমিনের কর্মী।

পাহাড়তলী থানার ওসি (তদন্ত) রাশেদুল হক জানান, বার কোয়ার্টার এলাকায় ছুরিকাঘাতে নিজামউদ্দিন মুন্না নামে একজন নিহত হয়েছেন। তার ভাই সালাউদ্দিন কামরুল ছুরিকাঘাত করেছেন বলে জানতে পেরেছি। মুন্না ও কামরুলের মধ্যে পূর্ব থেকে বিরোধ ছিল। অভিযুক্তকে আটকের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা